Amar Praner Bangladesh

কুষ্টিয়ায় বস্তা ভর্তি ফেন্সিডিল উদ্ধার হলেও রহস্যময় ব্যাগটি উধাও

 

 

হাসনাত রাব্বু, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি :

কুষ্টিয়া ট্রাফিক পুলিশের নিয়মিত চেকপোস্ট অংশ হিসেবে জগতি সুগার মিল এলাকায় রবিবার বিকেলে চেকপোস্ট বসায় সার্জেন্ট নাজমুলের নেতৃত্বে একটি টিম। সেখানে একটি মোটরসাইকেল থেকে ২৫০ বোতল ফেন্সিডিল সহ এক মাদক কারবারিকে আটক করা হয়।

জানা যায়, হঠাৎ একটা বাজাজ পালসার নাম্বার বিহীন মোটরসাইকেল কে থামার জন্য সিগন্যাল দেন সার্জেন্ট নাজমুল। মোটরসাইকেল না থামিয়ে দ্রুত পালানোর চেষ্টা করে মাদক কারবারি। তবে এক পথচারী তার সাথে থাকা বাঁশের মই সার্জেন্টের চিৎকারে রাস্তায় আড়াআড়ি করে দিলে বস্তা বোঝায় ফেন্সিডিল সহ এক মাদক মাদক কারবারিকে আটক করে ট্রাফিক পুলিশ।
আটককৃত মাদক কারবারি কুষ্টিয়া ইবি থানাধীন শংকরদিয়া গ্রামের বাজু মন্ডলের ছেলে আব্দুর সামাদ(২৮)।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, এই মাদক কারবারির সাথে আরো একটি মোটরসাইকেল ছিল। সেই মোটরসাইকেল রেখে দৌড়ে পালিয়ে যায় তার সহযোগীরা।

পরবর্তীতে জগতি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মেহেদী হাসান ও এ এসআই আসাদ ঘটনাস্থলে এসে ফেন্সিডিলের বস্তা খুলে জনসম্মুখে গণনা করেন।

জগতি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মেহেদী হাসান জানান বস্তা বোঝায় ফেন্সিডিল গণনা করে দেখা যায় সেখানে ২৫০ বোতল ফেন্সিডিল ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, দুই মোটরসাইকেলে চারজন ছিল। দুই জন পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও দুই জনকে আটক করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে কফি কালারের একটি স্কুল ব্যাগ ও একটি ফেন্সিডিল ভর্তি বস্তা উদ্ধার করে পুলিশ।
এদিকে স্কুল ব্যাগ ও অপর আসামি আটকের বিষয়টি অস্বীকার করেন জগতি পুলিশ ফাঁড়ির আইসি ও ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট নাজমুল।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া পুলিশ সুপারের খাইরুল আলম এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মাদকের বিষয়ে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। দুইটা মোটরসাইকেল ধরা হয়েছে সেখান থেকে ২৫০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। একজন মাদক কারবারিকে আটক করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতার করা হবে।