Amar Praner Bangladesh

কুষ্টিয়া জিমনাষ্টিক ক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

 

(জাতীয় পর্যায়ে পদক ছিনিয়ে আনবো এই স্বপ্নই দেখি : এ্যাডঃ আব্দুল মজিদ বাবু)

 

 

হাসনাত রাব্বু, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি :

কুষ্টিয়া জিমনাষ্টিক ক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা-২০২২ অনুষ্ঠিত হয়েছে। কুষ্টিয়ার পৌর বাজারের মাল্টিজিম, কুষ্টিয়া জিমনাষ্টিক ক্লাবের ২য় তলায় সকাল ১০ টার দিকে এই বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় কুষ্টিয়া জিমনাষ্টিক ক্লাবের সকল সদস্যদের সামনে ক্লাবের বার্ষিক কার্যকলাপ তুলে ধরেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

এসময় সভাপতি এ্যাডঃ আব্দুল মজিদ বাবু বলেন, আমরা সাধ্যমত ক্লাবের উন্নয়নে কাজ করে চলেছি। আমরা খুব শীঘ্রই দ্বিতীয়-তলায় মেয়েদের জন্য আলাদা সময় নির্ধারণ করে জিম শুরু করার ইচ্ছা আছে ও কি ভাবে ভালোমানের খেলোয়ার তৈরী করে জাতীয় পর্যায়ে পদক ছিনিয়ে আনবো এই স্বপ্নই দেখি। আমরা দায়িত্ব প্রাপ্ত হওয়ার পর আমার অন্তরের ইচ্ছা এই জিমনাষ্টিক ক্লাবকে কিভাবে আধুনিক মাল্টি জিমে রুপান্তরিত করা যায়।

এরপর কুষ্টিয়া জিমনাষ্টিক ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শফিকুজ্জামান দোলন তার বক্তব্যে ক্লাবের আয়-ব্যায়ের হিসাব স্বচ্ছভাবে তুলে ধরেন সাধারণ সদস্য ও উপস্থিত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স সাংবাদিকদের সামনে।

এসময় সাধারণ সম্পাদক বলেন,আপনারা জেনে খুশি হবেন যে, জাতীয় পর্যায়ে ভারোত্তোলন প্রতিযোগিতায় আমাদের ক্লাবের সদস্যরা অংশগ্রহন করে স্বর্ণ পদক, রোপ্পো পদক ও সিলভার পদক অর্জন করেছে। এরা হলো মোঃ মহিবুল ইসলাম বাধন, ফারিয়া ইয়াসমিন পুতুল, মোঃ খালিদ হোসেন, মোঃ আইয়ুব আলী শুভ এবং শরীর গঠন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করে সিলভার পদক অর্জন করেছে মোঃ সাজিদ হোসেন এছারাও বক্সিং প্রশিক্ষক হিসেবে জাতীয় পর্যায়ের প্রশিক্ষন দেওয়া হয়েছে মোঃ আরিফুল ইসলামকে। যে সকল ছেলে মেয়েরা ঢাকায় জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহন করেছে। তাদেরকে ক্যাম্পেইন এ খাবার, পোশাক, যাতায়াত এবং হোটেলে থাকা সহ সকল খরচ আমরা ক্লাব থেকে বহন করেছি। ইতিমধ্যে ফারিয়া ইয়াসমিন পুতুল ভারোত্তোনে বাংলাদেশ সেনা বাহিনীতে চাকুরী হয়েছে, এর সম্পূর্ন কৃতিত্ব আমাদের জিমনাষ্টিক ক্লাবের মাননীয় সভাপতি, এ্যাডঃ মোঃ আবদুল মজিদ বাবু ভাইয়ের। আশা করছি আগামীতে জাতীয় পর্যায়ে পদক প্রাপ্তির প্রত্যাশা নিয়ে আমরা সবাই মিলে আরও খেলোয়ার তৈরী করবো, ইনশা আল্লাহ।

পরিশেষে, কুষ্টিয়া জিমনাষ্টিক ক্লাবের উদ্যোগে লটারীর মাধ্যমে সকল সদস্যদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ শেষে ভোজন আয়োজন করা হয় ও সকলের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানা হয়।