Amar Praner Bangladesh

খাদ্য ও বস্ত্র বিতরণের আড়ালে খ্রিষ্টান ধর্মের গল্প শোনাতেন ফিলিসিয়া পরাগ বৈদ্য

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

অসহায় পথ শিশুদের খাবার ও বস্ত্র বিরতণ করছেন ফিলিসিয়া পরাগ বৈদ্য নামের খ্রিষ্টান ধর্মের এক তরুনী। প্রায় সময় দেখা যায় এই তরুনীকে খাবার ও বস্ত্র হাতে। ফুটপাত কিংবা রেল স্টেশন এলাকায় বিতরণ করেন আসহায়দের মাঝে।

সম্প্রতি পথশিশুরা জানান, প্রায় কয়েক মাস ধরে ফিলিসিয়া পরাগ বৈদ্য খাবার ও বস্ত্র নিয়ে আসতেন। নিরিবিলি পরিবেশে নিয়ে গিয়ে তাদের খাওয়াতেন আর খ্রিষ্টান ধর্মের নানা গল্প শুনাতেন। যাতে করে তারা খ্রিষ্টান ধর্মের প্রতি কিছুটা আগ্রহী দেখান।

পথ শিশুদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এই খাবার ও বস্ত্র বিতরণের সময় তিনি কৌশলে খ্রিষ্টান ধর্মের নানা দিক তুলে ধরেন। শিশুদের শোনান সেই ধর্মের তাৎপর্য। যাতে করে যেকোন সময় খাবারের লোভে প্রলুব্ধ করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গোপালগঞ্জের মকসদপুর এলাকার বাবা আখিস বৈদ্য ও মা লিদিয়া কানন বৈদ্য’র মেয়ে ফিলিসিয়া পরাগ বৈদ্য। পড়াশোনার সুবাদে ঢাকাতেই বসবাস করেন তিনি। তবে ঢাকার কোন এলাকায় বসাবাস করেন তা জানা যায়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফিলিসিয়া পরাগ বৈদ্য জানান, বিষয়টা এমন নয়। আমি অনেক আগে থেকেই অসহায় মানুষের মাঝে বস্ত্র ও খাদ্য বিতরণ করে থাকি। অসহায় মানুষের পাশে দাড়াতে ভালো লাগে। তাই সাধ্যমত চেষ্টা করি। আর ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করতে চাইনা। নিজের ধর্ম নিয়ে কথা বলাকে আমি অপরাধ মনে করি না বলে জানান।

খাদ্য বিতরণের সময় উপস্থিতদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তিনি মাঝে মাঝে আসেন খাবার নিয়ে। আবার বস্ত্র ও বিতরণ করেন। তবে সব সময় পথশিশুদের নিয়ে নিরিবিলি যেতেন। তারা খেত আর উনি অনেক গল্প করতেন বলে জানান শিশুরা। খ্রিষ্টান ধর্মের অনেক অজানা কথা বলতে শোনা যায়।