Amar Praner Bangladesh

খুলনায় বিএনপি ও পুলিশ-ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনায় কেন্দ্রীয় নেতা বকুলসহ আসামী ৮০০, গ্রেফতার-৪১

 

 

আ. রাজ্জাক শেখ :

 

বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচি পালনকালে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে সৃষ্ট সংঘর্ষের ঘটনায় এস আই বিশ্বজিৎ কুমার বসু বাদী হয়ে ৯২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৮০০জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। এজাহারনামীয় আসামীদের মধ্যে ৪১জনকে গ্রেফতার দেখিয়ে শুক্রবার (২৭ মে) জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া এজাহার নামীয়দের মধ্যে বিএনপি নেতা আলহাজ্ব রকিবুল ইসলাম বকুলসহ অন্যদের পলাতক দেখানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ২০ টুকরা ইটের টুকরা, ১২টি কাঠের আছাড়ি ও ৫টি লোহার রড জব্দ দেখানো হয়েছে।

এজাহারভুক্তরা হলেন নগর বিএনপির সদস্য সচিব শফিকুল আলম তুহিন (৫৫), রূপসার জোয়ার এলাকার আব্দুর রশিদের ছেলে মোঃ রনি শেখ (২৬), মোঃ হাফিজুর রহমান (৩৯), মোঃ মালেক খা (২৯),মোঃ আবু জাফর (৬২), মোঃ আসাদ মোল্লা (৫৮), দৌলতপুরের দেয়ানার শেখ খালিদ বিন ওয়ালিদ শোভন (২৬), মোঃ সাইফুল ইসলাম (৪৮), শেখ মোঃ রুবেল হোসেন (৩৫), মেঃ তিতাস শেখ (৩২), শেখ সরোয়ার হোসেন (৫৩), মোঃ রেজাউল ইসলাম (২২), আলী আজগর সরদার (২৭), মোঃ উজ্জল মোল্লা (৩০), ইমরান বিশ্বাস (২২), মোঃ শহিদুল ইসলাম (৫২), দিঘলিয়ার ফরমেজ খামার এলাকার মৃত জয়নাল আবেদীনের ছেলে রহিউল ইসলাম (৩৮), নয়ন সরদার (২০), মোঃ বোরহান আলী আকুঞ্জি (৩৬), সাইফুল ইসলাম (৩৪), আবু সালেহ শিমুল (২৫), ছেলে মোঃ দুলাল (২৫), মোঃ লিটন ফকির (৩৪), সুমন মীর (৪৩), মোল্লা তরিকুল ইসলাম (২০), সাজ্জাত হোসেন জিতু (৩০), আলম নুরু (৪৮), মোঃ সোবহান খান (৪০), মোঃ কদর শিকদার (২০), কাওসারী জাহান মঞ্জু (৪৮), শারমিন আক্তার (২৮), মরিয়ম খাতুন মুন্নি (৪০), ইভা জামান, মনি (৪০), রুকাইয়া দোলা (২৫), রুবিনা (৩২), কাজলী (৩৭), আনজিরা খাতুন (৬৯), পাপিয়া আক্তার পারুল (৫৩), আফরোজা জামান (৫২), সৈয়দা রেহেনা আক্তার (৭৩)।

এছাড়া এজাহারনামীয়দের মধ্যে পলাতক রয়েছে, নগর বিএনপির আহবায়ক এ্যাড. শফিকুল আলম মনা (৬৫), খুলনা-৩ আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্ব রকিবুল ইসলাম বকুল (৫৫), জেলা বিএনপির আহবায়ক আমির এজাজ খান (৫৩), নগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক তরিকুল ইসলাম জহির (৫৫), মাহাবুব হাসান পিয়ারু (৪৫), নগর ছাত্রদলের আহবায়ক মোঃ ইসতিয়াক আহম্মেদ ইস্তি (২৮), গোলাম মোত্তফা তুহিন (৩২), মোঃ তাজিম বিশ্বাস (২৮), আব্দুল মান্নান মিস্ত্রী (৩২), মোঃ মাসুদ পারভেজ বাবু (৩৫), কেন্দ্রীয় নেতা হেলাল আহম্মেদ সুমন (৩৮), একরামুল হক হেলাল (৪৪), আজিজুল হাসান দুলু (৫৭), মোঃ রাজু আহম্মেদ (২৮), মোঃ মাসুদ খান বাদল (৪৭), নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর (৪২), ইবাদুল হক রুবায়েত (৩৬), মোঃ মতিউর রহমান বুলেট (৪৫), এসএম মনিরুল হাসান বাপ্পি (৫৪), চৌধুরী হাসানুর রশিদ মিরাজ (৪৫), আশিকুর রহমান অনি (৩২), কিমিয়া সাদাত (৩৪), মাহমুদ নিবিড় (২০), রিয়াজ মোল্লা (৩৬), মাসকুর হাসান ফ্রান্স (৩৮), মেহেদী হাসান (৩২),মোঃ অনিক আহম্মেদ (২৮), রবিউল ইসলাম রবি (৩৮), তৌহিদুর রহমান তৌহিদ (৪৫), শাওন (৪০), জাহিদ মোল্যা (৪৫), বাচ্চু মোল্যা (৩৫), শফিকুল ইসলাম শফি (৪৫), সরদার মাফিজুল (৪৫), নগর বিএনপির যুগ্ম-আহবায়ক শেখ সাদী (৩৮), জাফরিন নেওয়াজ চন্দন (৪৭), হেলাল হোসেন গাজী (৩৩), বেলাল হোসেন গাজী (৩০), ফরিদ মোল্যা (৪৮), মজিবুর রহমান (৫৫),ফারুক হোসেন (৪৮), নাইম (৪০), গাউসুল গাউস (৪৫), সোহেল (৩৫), কাজী মাহামুদ আলী (৫৫), সজ্জাদ আহসান পরাগ (৪৩), একরামুল কবির মিল্টন (৫৩), ডালিম গাজী (৩৫), মনিরুল ইসলাম (৫৩), আবদুর রহমান (৫৫), শফিকুল ইসলাম টিপু (৪৫) সহ অজ্ঞাত ৭০০ থেকে ৮০০ জন। আসামীদের বিরুদ্ধে পেনাল কোড এর ১৪৩/১৪৭/১৪৯/১৫২/১৫৩/১৮৬/৩৩২/৩৩৩/৩৫৩/১০৯/৩৪ ধারায় অভিযোগ করা হয়েছে।

খুলনা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসান আল মামুন বলেন, পলাতক আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।