Amar Praner Bangladesh

খড়িয়া কাজিরচর ইউনিয়নে বেহাল অবস্থা ব্রীজের

 

 

মোঃ শামছুল হক :

 

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার খড়িয়া কাজিরচর ইউনিয়নে হাজারো মানুষের যাতায়াত দক্ষিণ খড়িয়ার সংলগ্ন খালের ওপর নির্মিত ব্রিজ। এ ব্রিজের ওপর দিয়ে কাজিরচর ভাটি লংগর পাড়া,পশ্চিম কাজিরচর,বালুরঘাট,খড়িয়া পাড়াসহ,পার্শ্ববর্তী এলাকায় যাতায়াত করেন স্থানীয় জনসাধারণ। শুধু তাই নয়, এ ব্রিজের ওপর দিয়ে বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত লোকজন যাতায়াত করেন।

গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়কের ওপর ব্রিজের মাঝখানে দীর্ঘদিন যাবত ভেঙে নিচু হয়ে গেছে।এতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এই সড়কের চলাচলকারী হাজারো মানুষের। প্রতিদিন এ ব্রিজের ওপর দিয়ে বাড়ি যানবাহন থেকে শুরু করে হালকা যানবান চলাচল করে। কখন ভেঙে পরে দুর্ঘটনা ঘটে যায় তার কোন নিশ্চয়তা নেই।ফলে ঝুঁকি নিয়েই চলতে হচ্ছে হালকা যানবাহনসহ স্থানীয় বাসিন্দাদের চলাচল।তারা জানান,বড় ধরনের যানবাহন চলাচল করছে ঝুকিপুর্ন অবস্থায়, এলাকায় নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহে মারাত্মক সমস্যার সম্মুখে পড়েছে। এছাড়াও মোটরসাইকেল,ইট ভর্তি টলি,নসিমন, ট্রাক্টর, পিকাপ,ও হালকা যানবাহন ঝুঁকিপুর্ণ অবস্থায় চলাচল করছে যানবাহন।

স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানান এ ব্রিজটি প্রায় তিন বছর থেকে এ অবস্থায় রয়েছে, এটা কোন ধরনের মেরামত ও নতুন করে তৈরি না করলে যখন তখন বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ব্রিজের পাশেই থাকা বাসের পাইকের কালো মিয়া জানান, আমি ভাটি লংগর পাড়া থেকে বাস কিনে লংগর পাড়া দিয়ে ঘুরে আসি,এখান দিয়ে আসতে পারিনা।অটো চালক খোকন মিয়া বলেন,এমন অবস্থা হয়েছে ব্রিজের,এর ওপর দিয়ে হেটে যেতেও ভয় লাগে,শুধু তাই নয় এ ব্রিজের ওপারে একটি কলেজ, প্রাইমারী স্কুল, হাইস্কুল, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন ধরনের প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান রয়েছে এ ব্রিজের ওপর দিয়ে পার্শ্ববর্তী এলাকার প্রায় ১০ হাজার লোকজন যাতায়াত করেন।

এ ব্রিজের ওপর দিয়ে বিভিন্ন এলাকা থেকে যানবাহনসহ স্কুল কলেজের ছাত্র ছাত্রীরা যাতায়াত করেন, ছাত্র জোবাইদুল ইসলামসহ আরও অনেকেই বলেন, এমন বেহাল অবস্থা হয়েছে ব্রিজের, এ পথ দিয়ে আমরা প্রতিদিন স্কুল কলেজে যাতায়াত করি,এতে যখন তখন দুর্ঘটনা হতে পারে। এ মাঝ রাস্তার ওপর ব্রিজটি দুত মেরামত ও পুনরায় নির্মাণ করলে ঝুকি পুর্ণ অবস্থায় চলাফেরা করতে হতনা।এ ব্যপারে স্থানীয় এলাকাবাসীসহ মুরুব্বিরা বলেন,এ ব্রিজটি বেশি দিন হয়নি নির্মাণ করা হয়েছে।এ ব্রিজের আশপাশ থেকে বালু উত্তলনও করা হইনি।হটাৎ করেই এ অবস্থা হয়েছে। তবে এ বেহাল অবস্থার কারণে যাতায়াতকৃত জনসাধারণ এবং পার্শ্ববর্তী এলাকাবাসী বিপাকে পরেছে,। তবে পুনরায় নির্মাণ না করা পর্যন্ত ব্রিজের সংযোগ বন্দ করে দিলে দুর্ঘটনার হাত থেকে বেচে যাবে স্থানীয় এলাকাবাসী।

ব্রীজের এমন ভয়াবহ অবস্থা হওয়ায়, স্থানীয় এলাকাবাসী ও পার্শবর্তী স্থানীয়দের দাবি হচ্ছে। পুনরায় ব্রীজের নির্মাণ করতে হবে।তানাহলে আমরা আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহ, ও আমাদের সন্তানদের স্কুল কলেজে ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় যাতায়াত করতে হচ্ছে। আমাদের ব্রিজটি পুনরায় নির্মাণ করলে আমাদের সন্তানদের স্কুল কলেজে যাতায়াতের কোন ধরনের সমস্যা হতনা।দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এ ব্রিজের ওপর দিয়ে যাতায়াতকৃত লোকজনের।