Amar Praner Bangladesh

গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় স্ষ্ঠ্যু নির্বাচন অনুষ্ঠানে কোন কিছুর দ্বারা প্রভাবিত হবো না : কে এম নূরুল হুদা

কাপাসিয়া, গাজীপুর প্রতিনিধি: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে যেন গণতন্ত্র প্রাতিষ্ঠানিক রূপ লাভ করে এবং সুষ্ঠ্য নির্বাচন অনুষ্ঠানে তিনি কোন কিছুর দ্বারা প্রভাবিত হবেন না। আগামী নির্বাচন অবশ্যই সুষ্ঠ্য ও নিরপেক্ষ হতে হবে, এর কোন বিকল্প নেই।   সকল রাজনৈতিক দল মত যেন যার যার অবস্থানে থেকে দলীয় কর্মকান্ড পরিচালনা করতে পারেন, সে জন্য স্থানীয় প্রশাসন ও ক্ষমতাসীন দলের নেতৃবৃন্দের প্রতি অনুরোধ জানান।  তিনি গতকাল মঙ্গলবার সকালে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার ভোটার তালিকা হাল নাগাদ কার্যক্রম-২০১৭  উপলক্ষে রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম পরিদর্শণ ও মতবিনিময় সভায় উপরোক্ত কথা গুলো বলেন।
কাপাসিয়া উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পরিষদ সভা কক্ষে জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ূন কবীরের সভাপতিত্বে ও পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, ঢাকা আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসার রকিব উদ্দিন মন্ডল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাকছুদুল ইসলাম, জেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ তারিফুজ্জামান, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. রেজাউর রহমান লস্কর মিঠু, জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি অ্যাড. আমানত হোসেন খান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বজলুর রশীদ মোল্লা, জেলা পরিষদ সদস্য ও যুবলীগ সভাপতি মাহবুব উদ্দিন সেলিম, উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মাহবুব আলম মোড়ল, রায়েদ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাই, সিংহশ্রী ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফ উদ্দিন খান আল আমীন, কাপাসিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাখাওয়াত হোসেন প্রধান, তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রমের সুপারভাইজার আশরাফুল আলম খান প্রমূখ। এছাড়া মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় কৃষকলীগ সভাপতি আলহাজ¦ মোঃ মোতাহার হোসেন মোল্লা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রাসেল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আনিসুল ইসলাম, কাপাসিয়া থানার ওসি মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক, উপজেলা নির্বাচন অফিসার হুমায়ূন কবির, কাপাসিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন বেপারী, নাজমূল হোসেন ভূইঁয়া, ফকির কামাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক কফিল উদ্দিন বেপারী, উপজেলা যুবদল সভাপতি হোসেন সারোয়ার, কৃষকলীগ নেতা আইন উদ্দিন,  মহিলালীগ নেত্রী কামরুন নাহার রিনা প্রমূখ। এছাড়া বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের কর্মকর্তাগণ, আওয়ামীলীগ ও বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, ভোটার হাল নাগাদ কার্যক্রমে সংশ্লিষ্ট সুপারভাইজারগণ সহ স্থানীয় সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।
উপস্থিত বিভিন্ন শ্রেণী পেশার প্রতিনিধিদের প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা সবাইকে আশ^স্ত করে বলেন, কমিশন নিয়োগের পর কুমিল্লা সিটি করর্পোরেশন নির্বাচন ও দু’টি উপ-নির্বাচন সহ বিভিন্ন নির্বাচন অনুষ্ঠানে ইতিমধ্যে কমিশন যথেষ্ট স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতার পরিচয় দিয়েছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠ্যভাবে সম্পন্ন করার জন্য কমিশন ৭ টি রোডম্যাপ দিয়েছেন। সুষ্ঠ্য নির্বাচনের জন্য প্রথমত সুষ্ঠ্য ভোটার তালিকা প্রনয়নের উপর গুরুত্বারোপ করেন। আগামী বছরের ৩১ জানুয়ারী চুড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে। ইতিমধ্যে কমিশন সুশীল সমাজের সাথে মতবিনিময় করেছেন এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সাথে মতবিনিময়ের প্রস্ততি নিচ্ছেন।
বক্তব্যের শুরুতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম প্রধান মন্ত্রী ও এলাকার কৃতি সন্তান শহীদ বঙ্গতাজ তাজউদ্দীন আহমদের নাম শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন। সাম্প্রতিক সময়ে বন্যা দূর্গতদের প্রতি সমবেদনা ও যাদের মৃত্যু হয়েছে, তাদের আত্বার মাগফেরাত কামনা করেন। তিনি নতুন ভোটার ও যুব সমাজের প্রতি তাদের সমাজের দ্বায়বদ্ধতার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, তোমরা সৎ, যোগ্য নেতা বর্িাচন করবে এবং একদিন সমাজের নেতৃত্ব দিবে। জাতীয় পরিচয় পত্র ও স্মার্ট কার্ড তৈরীতে প্রবাসীদের বিশেষ গুরুত্ব দেয়ার জন্য আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসারকে নিদের্শ প্রদান করেন। তিনি আরো বলেন, দেশের মোট ভোটার প্রায় ১১ কোটি ১৭ লাখ। আর ভোট গ্রহন কার্যক্রমের সাথে জড়িত ৭ লাখ লোক । এতো অল্প সংখ্যক জনবল দিয়ে একসাথে সারাদেশে সুষ্ঠ্যভাবে ভোট গ্রহন করা সম্ভব না। তাই দেশের প্রত্যেকটি সচেতন নাগরিককে নিজ নিজ অবস্থানে দায়িত্ব পালনের জন্য সবার প্রতি আহবান জানান।
পরে তিনি দুপরে উপজেলার হাইলজোর গ্রামে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ ডিগ্রি কলেজে স্মার্ট কার্ড তৈরী কার্যক্রম উদ্বোধণ করেন। এ সময়  কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মিজানুর রহমান চৌধূরী, হাইলজোর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজাদ ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে সকাল সোয়া ১০টায় সরকারী সফরে কাপাসিয়ায় পৌঁছলে স্থানীয় ডাকবাংলোতে জেলা পুলিশের একটি চৌকষ দল তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন।