Amar Praner Bangladesh

চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দীর্ঘদিন বন্ধ এক্স-রে মেশিন

মোঃ একরামুল হক মুন্সী, চিতলমারী (বাগেরহাট)

বাগেরহাটের চিতলমারীতে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দীর্ঘদিন টেকনিশায়ান না থাকায় নষ্ট হতে বসেছে অত্যাধুনিক এক্স-রে মেশিনটি। ফলে রোগীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। প্রতিনিয়ত চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত মূল্যে প্রাইভেট ক্লিনিক- ডায়গনষ্টিক সেন্টার থেকে এক্স-রে করাতে হচ্ছে।
সরজমিনে দেখা গেছে, হাসপাতালের এক্স-রে রুমেঅত্যাধুনিক মেশিনটি দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ অবস্থায় অবস্থায় রয়েছে। দীর্ঘদিন টেকনিশয়ান না থাকায় মেশিনটি নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের বহির্বিভাগের চিকিৎসকরা এক্স-রে করার জন্য বিভিন্ন প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানে পাঠানো হচ্ছে। দীর্ঘদিন হাসপাতালে টেকনিশয়ানের পদটি শূণ্য থাকায় বাধ্য হয়েই চিকিৎসকরা  রোগীদের এক্স-রে করার জন্য বাইরের বিভিন্ন ক্লিনিক- ডায়গনষ্টিক সেন্টারে পাঠাচ্ছেন।
চিকিৎসা নিতে আসা কয়েকজন রোগীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, হাসপাতালের প্যাথলজি বিভাগে অন্যান্য পরীক্ষা করার ব্যবস্থা থাকলেও এক্স-রে করার জন্য বাধ্য হয়ে তাদের বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিক- ডায়গনিষ্টিক সেন্টারে অতিরিক্ত মূল্য দিয়ে এক্স-রে করাহে হচ্ছে।
উপজেলা প.প.কর্মকর্তা ডাঃ আলমগীর জানান, দীর্ঘদিন যাবত হাসপাতালের এক্স-রে মেশিনটি বিকল ছিল। গত কয়েকমাস আগে মেশিনটি ঠিক করা হলেও টেকনিশিয়ান না থাকায় এক্স-রে করা সম্ভব হচ্ছে না। দির্ঘদিন অকেজো অবস্থায় পড়ে থাকার কারণে মেশিনটি নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। কয়েকবার করে জরুরি ভিত্তিতে টেকনিশিয়ান পদায়ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।
বাগেরহাট জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ অরুন কুমার মন্ডল জানান, চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টেকনিশিয়ানের অভাবে এক্স-রে মেশিন বন্ধ রয়েছে। এ বিষটি স্বাস্থ্য বিভাগকে জানানো হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে টেকনিশিয়ান পদায়ন করার ব্যবস্থা করা হবে।