‘জনগণ আর হালুয়া-রুটির গণতন্ত্র চায় না’

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

জনগণ আর হালুয়া-রুটির গণতন্ত্র চায় না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এ পরিপ্রেক্ষিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশে তিনি বলেছেন, কথায়, আচরণে, রাজনীতিতে আপাদমস্তক অগণতান্ত্রিক মূল্যবোধ চর্চা করে বিএনপি। এ জন্য মির্জা ফখরুলকে দেশের গণতন্ত্র নিয়ে কথা বলার আগে নিজ দলে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের রোববার (১৮ এপ্রিল) সকালে তার সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ আহ্বান জানান।

এ সময় তিনি বৈশ্বিক সংকটে সরকারের পাশাপাশি অসহায় ও কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলমত নির্বিশেষে সব শ্রেণি-পেশার মানুষের প্রতি আহ্বান জানান। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এই ত্যাগ ও সংযমের মাসে অসহায় দরিদ্রদের প্রতি মানবিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে।’

ইতোমধ্যে সরকার করোনা ও লকডাউনে অসহায়-কর্মহীন মানুষের আর্থিক সুরক্ষায় বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এই ধারাবাহিকতায় লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত ১ কোটি ২৫ লাখ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হবে।’ এছাড়া আসন্ন ঈদে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে ৩৬ লাখ ২৫ হাজার দরিদ্র পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

বিপন্ন মানুষের পাশে সবার আগে দাঁড়ানো আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক সংস্কৃতি বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস রাজনৈতিক দল চেনে না। প্রতিদিনই হারাচ্ছি মূল্যবান প্রাণ, দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল। কাজেই দোষারোপের রাজনীতি নয়, নয় অন্ধ সমালোচনার তীর ছোঁড়া। সবাইকে সংক্রমণ রোধে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।’

এর আগে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সেতু বিভাগের সঙ্গে বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম পর্যালোচনা সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হন। পর্যালোচনা সভায় সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নানান চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে এগিয়ে চলছে পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ। ইতোমধ্যেই ৪১টি স্প্যান বসানো হয়েছে। এখন রেলওয়ে ও সড়ক পথের স্ল্যাব বসানোর কাজ এগিয়ে চলছে। গতকাল পর্যন্ত পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজের অগ্রগতি ৮৫ ভাগ।’

তিনি আশা প্রকাশ করেন ২০২২ সালের জুনে এই সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হলে যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

চট্টগ্রামে কর্ণফুলী নদীর তলদেশ দিয়ে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ইতোমধ্যে প্রায় আড়াই কিলোমিটার দীর্ঘ একটি টিউবের রিং প্রতিস্থাপনসহ বোরিং কাজ শেষ হয়েছে। এর মধ্যে টিউবটির ৪০০ মিটার রোড স্ল্যাব নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। এখন পর্যন্ত টানেল নির্মাণ কাজের অগ্রগতি ৬৬ দশমিক ৫০।’

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে এবং এয়ারপোর্ট রোড হতে আশুলিয়া বাইপাইল হয়ে ঢাকা ইপিজেড পর্যন্ত চার লেনের সড়ক ও উড়ালপথ নির্মাণ প্রকল্পের কিছুটা গতি পেলেও আশানুরূপ অগ্রগতি হয়নি বলেও জানান সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।