Amar Praner Bangladesh

জনপ্রিয়তায় শীর্ষ স্থানে আধুনিক ও মানবিক যুব সমাজ গড়ার কারিগর রাসেল সরকার

 

 

তানজিলা ইসলাম :

 

জনপ্রিয়তায় শীর্ষ স্থানে আধুনিক ও মানবিক যুব সমাজ গড়ার কারিগর গাজীপুর জেলার জনগনের নিবেদিত প্রাণ যুব সমাজের যুবরাজ একটি মানবিক যুব সমাজ গড়ার লক্ষে যিনি দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন, এতক্ষণ যার কথা বলছিলাম তিনি হলেন, গাজীপুর জেলার যুবলীগের আহ্বায়ক কামরুল আহসান সরকার রাসেল।

একজন সৎ, ত্যাগী, নিরহংকার, পরিচ্ছন্ন রাজনিতীবিদ জনগনের নিবেদিত প্রান ও কর্মিবান্ধব বিশিষ্ট সমাজসেবক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব রাজপথের বর্তমান সময়ের সাহসী এক যোদ্ধা। স্থানীয় সফল রাষ্ট্রনায়ক মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে এবং যুবলীগের উর্ধতন কর্মকর্তদের দিক নির্দেশনায় ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয় করে উন্নয়নের জোয়ারে ভাষাতে চায় গাজীপুর বাসিকে।

একাগ্রতার সাথে গাজীপুরের সকল শ্রেনী পেশার মানুষের সকল সমস্যা সমাধানে তার তৎপরতা সকলের কাছেই দৃশ্যমান। যারা দেশ ও জনগনের জন্য নিজের জীবনকে মৃত্যুর দুয়ারে বারবার ঠেলে দিয়ে কাজ করে জীবন্ত ও কালজয়ী ইতিহাস সৃষ্টি করতে পারে তাদের মধ্যে অন্যতম করোনা যুদ্ধা কামরুল আহসান সরকার রাসেল চাচা এমনটায় জানালেন টঙ্গী পুর্ব থানা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক পদপ্রার্থী লিটন উদ্দিন সরকার, তিনি আরো বলেন এমন একজন যোগ্যতা সম্পুর্ন ব্যাক্তিকেই আমরা গাজীপুরের মেয়র হিসাবে দেখতে চাই, আগামীতে রাসেল চাচা হবে আমাদের গাজীপুরের মেয়র ইনশাআল্লাহ।

টঙ্গী পশ্চিম থানা আহ্বায়ক আয়েশা আক্তার আশা বলেন শান্তির অগ্রদূত, উন্নয়নের রুপকার তিনি গত কয়েক বছর ধরে গরিব অসহায় মানুষকে যে ভাবে সহযোগীতা করে আসছে এবং বিশেষ করে রমজান মাসে পুরা রমজান মানুষের সেবাই নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন এমন নেতা এই সমাজে নেই বললেই চলে এমন উদার মানসিকতা কে আমি সাধুবাদ জানাই এবং আন্তরের অন্তরস্থল থেকে দোয়া করি এভাবেই যেনো রাসেল ভাই সকলের মধ্যমণি হয়ে থাকে।

নাম প্রকাশে অনইচ্ছুক এক ছাএলীগ নেতা বলেন রমজান মাসে একমাস ব্যাপী অসহায়দের মাঝে ইফতার বিতরন, ও ঈদে ঈদ সামগ্রী খাদ্য বশ্র বিতরন, স্থানীয় মাদ্রাসা, এতিম খানা, অসহায় মানুষের বাড়িতে টিউবওয়েল বসিয়ে দেওয়া, এবং করোনা কালীন সময়ে লগডাউনে থাকা ঘরবন্ধী মানুষকে এান সামগ্রী দেওয়া, আসলে রাসেল ভাইয়ের অসহায়দের সহযোগীতার কথা বলে শেষ করা যাবেন, আমি তার এই মহৎ লক্ষ কে স্যালুট জানাই,এবং যুব সমাজের একটা উজ্জ্বল নক্ষত্র, এই নেতাই পারবে গাজীপুরকে মডেল টাউন বানাতে এবং উন্নায়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে, তাই সচেতন মহলকে বলব আগামীতে যোগ্য এবং দক্ষ হিসাবে মেয়রের স্থানটা রাসেল ভাইকে দেওয়ার অনুরোধ রইল গাজীপুর বাসির কাছে। শুধু তাই নয় সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও মাদকের বিরুদ্ধে তার অবস্থান প্রশংসনীয়। যার ফলে যুবসমাজের মধ্যমণি হয়ে অবস্থান করছেন জনতার মন মন্দিরে।

সাদামাটা জীবনযাপন করা এই ব্যাক্তি একই সাথে নিজের ব্যাক্তিগত জীবন, রাজনৈতিক অঙ্গন, নিজ জেলার পার্সবর্তি এলাকার বাসিন্দাদের মন জয় করে তাদের ভালোবাসা অর্জন সব ক্ষেত্রেই সমানতালে সফলতা অর্জন করেছেন। আর তার এই সফলতার পেছনে অন্যতম প্রধান কারন তার অতিসাধারন জীবনযাপন ও মানুষের বিপদে আপদে সর্বক্ষন পাশে থাকার এক আদম্য মানষিকতা। যা তাকে তার এলাকার সর্বস্তরের মানুষের মধ্যমণি করে রেখেছে। দিনরাত, ঝড়—বৃষ্টি সব প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে মানুষের বিপদে আপদে সর্বদা পাশে দাঁড়িয়েছেন। কেউ কোন সমস্যা নিয়ে তার কাছে এলে শত ব্যস্ততার ভিড়েও হাসিমুখে ধৈর্য সহকারে তাদের কথা শুনেছেন, সমস্যা সমাধানের সর্বাত্মক চেষ্টা করে চলেছেন ।

এলাকার উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে রেখেছেন অসামান্য অবদান। দলীয় নেতাকর্মী সহ সাধারণ জনগনের কাছে এটা প্রমাণিত যে, কামরুল আহসান সরকার রাসেল এর বিকল্প রাসেল সরকারই। এলাকায় শুধু রাজনৈতিক কর্মকান্ডই নয় দলমত নির্বিশেষে সাধারণ মানুষের মধ্যে কামরুল আহসান সরকার রাসেল, আকাশচুম্বি জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলেছে, তারই ধারাবাহিকতায় যোগ্য নেতা যোগ্য দাতা, মেয়র হিসাবে দেখতে চায় গাজীপুরের জনগন।