জনবান্ধব গরীবের বন্ধু ৪৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ মোতালেব মিয়া

 

এ.আর. নাছিমা বৈশাখী :

 

বহুগুণে গুনান্বিত- সমাজসেবক-গরীবের বন্ধু মোঃ মোতালেব মিয়া, কাউন্সিলর ৪৭ নং ওয়ার্ড, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন, ঢাকা। আমার জানামতে, মোঃ মোতালেব মিয়া একজন সাদা মনের মানুষ। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে কর্মহীন মানুষের পাশে উদারতার সাথে থেকে অনেক লোককে সাহায্য সহযোগীতা করেছেন।

দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ’র রিপোর্টার এ.আর. নাছিমা বৈশাখীর সাথে আলাপ চারিতায় মোঃ মোতালেব মিয়া বলেন, আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও নীতি অনুসরণ করে নিজের জীবন এবং রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট চালিয়ে আসছি সততার সাথে। ঢাকা-১৮ আসনের প্রয়াত এ্যাড. সাহারা খাতুনের রুহের মাগফেরাত কামনা করছি।

এই শোকের মাসে ঘাতকদের নির্মম আঘাতে জাতির জনক সহ তাঁর পরিবারকে যেভাবে নিষ্ঠুর ভাবে শহীদ করা হয়েছে মহান আল্লাহ্ যেন তাদেরকে জান্নাত নসিব করেন। আমি কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর আমার এলাকার সকল সমস্যা গুলো চিহ্নিত করে একটি একটি করে সকল কিছু সমাধান করার চেষ্টা করে আসছি। ইতিমধ্যে আপনারা তার সুফল পাওয়া শুরু করেছেন।

প্রয়াত এ্যাড. সাহারা খাতুন এবং ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মহোদয়ের দিক নির্দেশনা তথাপি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নে মহা পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আমার অবস্থান থেকে শতভাগ সততার মধ্য দিয়ে সকল কাজ সম্পূর্ণ করবো জনগণের সহযোগীতা এবং ভালবাসার মধ্য দিয়ে।

ইতিমধ্যে এলাকার রাস্তাঘাটের উন্নয়ন সহ ব্যাপক কাজের বরাদ্ধ নিয়ে মেয়র মহোদয়ের দিক নির্দেশনায় একটি আধুনিক আদর্শ মডেল ওয়ার্ড হিসেবে ৪৭ নং ওয়ার্ডকে নতুন আঙ্গিকে সাজাবার প্রেক্ষিতে কাজ করে যাচ্ছি নিরলস ভাবে। এর মধ্যে অন্যতম ৪৭ নং ওয়ার্ডকে সিসি ক্যামেরা বেষ্টিত নিরাপত্তা জোন হিসেবে ঘোষণা দেওয়ার লক্ষ্যে সকল ব্যবস্থা প্রায় দ্বারপ্রান্তে।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গঠনে আমরা তার একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে নিজেকে উৎস্বর্গ করে প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের সোপানে আমার এলাকা সহ স্বাধীনতা এবং বাংলাদেশের ভাবমূর্তি তুলে ধরতে আমাকে যে দায়িত্ব দেওয়া হবে, আমি তার যথাযথ মূল্যায়ন করবো।

আপনারা সাংবাদিক আপনাদের কাছে আকুল আবেদন আমার নেত্রী প্রধানমন্ত্রী যেভাবে দেশে উন্নয়নমূলক কাজ করছে আপনারা আপনাদের লিখনীর মাধ্যমে আগামী প্রজন্মের কাছে তুলে ধরবেন।