Amar Praner Bangladesh

জাফর ইকবালের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধনে রাবি ভিসি স্বাধীনতার দোসররা আজও তৎপর

রাবি প্রতিনিধি: অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের উপর আক্রমণ এটি কোন ব্যাক্তির উপর হামলা নয়; বরং এ আক্রমণ একটি আদর্শের উপর। জাতিকে মেধাশূন্য করার লক্ষে মুক্ত চিন্তার ব্যক্তি গুলোকে হত্যার পায়তারা চলছে। এ ব্যক্তিগুলোকে হারালে দেশ তার অস্তিত্ব হারাবে। দেশ স্বাধীন হয়েছিল এ অসাম্প্রদায়িক আদর্শে। কিন্তু স্বাধিনতার অপশক্তি আজও বাংলার মাটিতে রয়ে গেছে। এ প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠি দেশ-বিদেশে তাদের কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। সাম্প্রদায়িক মৈত্রির দেশে অরাজকতার বিষবাষ্প জ্বালিয়ে দিতে স্বাধীনতার দোসররা আজও তৎপর।
সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট ভবনের সামনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের ব্যানারে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এসব কথা বলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহান।
এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু হত্যার মধ্য দিয়ে এ দেশে খুনির রাজনীতি শুরু হয়েছে। সেই থেকে এই দেশে সাম্প্রদায়িক শক্তি ও স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি দুই দশকের বেশি সময় ধরে রাষ্ট্রক্ষমতায় ছিল। রাষ্ট যখন খুনির পৃষ্ঠপোষকতা করে, খুনির প্রশ্রয় দেয়, তাকে পুরস্কৃত করে সেই রাষ্ট্রে খুন তো চলবেই। ‘মুক্তিযুদ্ধর বিপক্ষের শক্তি দেশকে পিছনে টানার চেষ্টায় আছে সব সময়, এই অন্যায়ের মোকাবেলা শুধু মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির পক্ষে সম্ভব নয়। এর জন্য প্রয়োজন সম্মিলিত প্রচেষ্টার’।

বিশ্ববিদ্যালয় অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. এ এস এম রেজাউল করিম বক্সীর সঞ্চালনায় ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক ড. মো. জুলফিকার আলীর সভাপতিত্বে এসময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, ছাত্র উপদেষ্টা ড. জান্নাতুল ফেরদৌস, জনসংযোগ অধিকর্তা ড. প্রভাষ কুমার কর্মকার, অধ্যাপক মলয় কুমার ভৌমিক, ড. সরকার সুজিত কুমার, ড. মো. ছাদেকুল আরেফিন প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা আরোও বলেন, ছাত্রদেরকে শুধু পুথীগত জ্ঞান প্রদান করলে হবে না । এই পুথীগত জ্ঞান তাদের শুধু রেজাল্টমুখী করে তোলে। এ ঘটনা যদি ৮০ দশকে ঘটতো তাহলে এতসময় সবকিছু অচল হয়ে যেত। কিন্তু এখনকার সময়ে ছাত্ররা আমাদের পাশে আসতে চাইনা। তাদেরকে একাডেমীক পড়ালেখার পাশাপাশি সমাজ সচেতন মূলক বই পড়তে উদ্ধুদ্ধ করতে হবে। আমাদেরকে শিক্ষার্থীদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখতে হবে। আজ এমন একজন মানুষের উপর এ বর্বর হামলা হয়েছে যিনি একাধারে বুদ্ধিজীবি, অসাম্প্রদায়িক, লেখক, সমাজ সচেতক। এই হামলা তারাই করেছে যারা মুক্তিযুদ্ধের আর্দশকে বিশ্বাস করে না যারা উর্গ্রবাদী ।