Amar Praner Bangladesh

জিয়া রাজনীতির চার নম্বর মীরজাফর- তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

ইসমাইল হোসেন বাবু, ভেড়ামারা (কুষ্টিয়া) থেকে ঃ জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, যুদ্ধাপরাধী-রাজাকার এবং সাম্প্রাদয়িকতার বিষবৃক্ষ রোপন করে জেনারেল জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের রাজনীতিতে চার নম্বর মীরজাফর হিসেবে নিজের নাম লিখিয়েছেন।
গতকাল শুক্রবার সকালে কুষ্টিয়ার মিরপুর পাকহানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে উপজেলা অডিটোরিয়ামে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির সেনা মোতায়েন দাবির প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে সেনাবাহিনী থাকা না থাকা এটা কমিশনের ব্যাপার।
তিনি আরো বলেন, ১৯৯১, ৯৬ ও ২০০১ সালে নির্বাচনে সেনাবাহিনী থাকার পরও বিএনপি তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন। যে নির্বাচনে খালেদা জিয়া জিততে পারেননি, সেটি তিনি মানেননি। নির্বাচনে সেনাবাহিনী চাওয়া মানে একটা কূট তর্ক তৈরি করা, কার্যত নির্বাচনকে বানচাল করার একটা পাঁয়তারা ছাড়া আর কিছুই না।’
ইনু বলেন, বিএনপি নেত্রীর চ্যালেঞ্জ হচ্ছে কিভাবে নির্বাচনে খুনিদের রক্ষা করা যায়। বিপরীতে আমাদের চ্যালেঞ্জ হচ্ছে কিভাবে খুনিদের হাত থেকে বাংলাদেশের রাজনীতি, সংসদ, গণতন্ত্র এবং ক্ষমতাকে দূরে রাখা যায়।’
এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জামাল উদ্দিন আহমেদ,কেন্দ্রীয জাসদের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল আলীম স্বপন, জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম মহসিন, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার নূরে আলম সিদ্দিকী, মিরপুর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নজরুল করিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। তিনি মিরপুর উপজেলায় বিভিন্ন সরকারী ও রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ গ্রহন শেষে বিকেলে ভেড়ামারা উপজেলার মোকারিমপুর ইউপির গোলাপনগর ‘মুকুল ক্লাব’ চত্বরে বীরমুক্তিযোদ্ধা শহীদ রফিক স্মরণে আয়োজিত এক স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন।
জিয়া রাজনীতির চার নম্বর মীরজাফর- তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু
ইসমাইল হোসেন বাবু, ভেড়ামারা (কুষ্টিয়া) থেকে ঃ জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, যুদ্ধাপরাধী-রাজাকার এবং সাম্প্রাদয়িকতার বিষবৃক্ষ রোপন করে জেনারেল জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের রাজনীতিতে চার নম্বর মীরজাফর হিসেবে নিজের নাম লিখিয়েছেন।
গতকাল শুক্রবার সকালে কুষ্টিয়ার মিরপুর পাকহানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে উপজেলা অডিটোরিয়ামে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির সেনা মোতায়েন দাবির প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে সেনাবাহিনী থাকা না থাকা এটা কমিশনের ব্যাপার।
তিনি আরো বলেন, ১৯৯১, ৯৬ ও ২০০১ সালে নির্বাচনে সেনাবাহিনী থাকার পরও বিএনপি তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন। যে নির্বাচনে খালেদা জিয়া জিততে পারেননি, সেটি তিনি মানেননি। নির্বাচনে সেনাবাহিনী চাওয়া মানে একটা কূট তর্ক তৈরি করা, কার্যত নির্বাচনকে বানচাল করার একটা পাঁয়তারা ছাড়া আর কিছুই না।’
ইনু বলেন, বিএনপি নেত্রীর চ্যালেঞ্জ হচ্ছে কিভাবে নির্বাচনে খুনিদের রক্ষা করা যায়। বিপরীতে আমাদের চ্যালেঞ্জ হচ্ছে কিভাবে খুনিদের হাত থেকে বাংলাদেশের রাজনীতি, সংসদ, গণতন্ত্র এবং ক্ষমতাকে দূরে রাখা যায়।’
এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জামাল উদ্দিন আহমেদ,কেন্দ্রীয জাসদের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল আলীম স্বপন, জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম মহসিন, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার নূরে আলম সিদ্দিকী, মিরপুর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নজরুল করিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। তিনি মিরপুর উপজেলায় বিভিন্ন সরকারী ও রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ গ্রহন শেষে বিকেলে ভেড়ামারা উপজেলার মোকারিমপুর ইউপির গোলাপনগর ‘মুকুল ক্লাব’ চত্বরে বীরমুক্তিযোদ্ধা শহীদ রফিক স্মরণে আয়োজিত এক স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন।