Amar Praner Bangladesh

টঙ্গীতে গৃহবধূকে গণধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ, গ্রেফতার ৩

 

মনির হোসেন (শিশির) :

গাজীপুরের টঙ্গীতে এক গৃহবধূকে (২৪) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তিন যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত সোমবার টঙ্গীর মিরাশপাড়া নদীবন্দর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার একদিন পর মঙ্গলবার দুপুরে তথ্যটি নিশ্চিত করেন টঙ্গী পূর্ব থানার এসআই সাব্বির হোসেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন টঙ্গীর মিরাশপাড়া এলাকার জাবেদ মিয়ার ছেলে মো. শাওন (২৪), নবীন হোসেনের ছেলে নাদিম হোসেন (১৯) ও গাজী সালাউদ্দিনের ছেলে গাজী সাকিবুজ্জামান সিয়াম (২১)। তারা একই এলাকায় বাস করতেন।

পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত যুবক শাওন সঙ্গে ওই নারীর পূর্বে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সোমবার সকালে তাকে বাসা থেকে ফোন করে ওই এলাকার মৃত গাজী আলাউদ্দিনের বাড়িতে নিয়ে যায় শাওন। পরে একটি কক্ষে ওই নারীর চোখ বেঁধে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তারা।

এ সময় ঘটনাটির ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে শাওন। পরে ওই নারীকে ছেড়ে দেয় অভিযুক্তরা। ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পর ওই নারী বাসায় ফিরে ৯৯৯ ফোন করে পুলিশকে জানালে পুলিশ অভিযুক্ত তিন যুবককে গ্রেফতার করে। ওই নারীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে গাজীপুর শহিদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নির্যাতিতা নারী জানান, শাওন আমার পূর্ব পরিচিত। কয়েক মাস আগে আমার বিয়ে হয়। আমি মিরাশপাড়া এলাকার একটা ভাড়া বাসায় স্বামীর সঙ্গে বাস করি। সোমবার সকালে ফোন করে শাওন দেখা করতে চাইলে আমি ওই স্থানে যাই। পরে সে ও তার বন্ধুরা একটি ঘরে আমাকে নিয়ে যায়। আমার ওড়না দিয়ে চোখ বেঁধে তিনজন পালাক্রমে ধর্ষণ করে।এ সময় শাওন মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে। পরে কাউকে কিছু জানালে ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার কথা জানায়। বাসায় ফিরে পুলিশকে জানালে পুলিশ আমাকে থানায় নিয়ে আসে। মঙ্গলবার ওই তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছি।

টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি মো. আশরাফুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণ ও ঘটনাটির ভিডিও ধারনের কথা স্বীকার করেছে তিন যুবক। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা করা হয়েছে।