টঙ্গীতে সরকারি দলের বিক্ষোভ মিছিল মহাসড়ক অবরোধ

 

মো: বশির আলম, টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি :

 

গাজীপুরের টঙ্গীতে বিক্ষোভ মিছিল ও মহাসড়ক অবরোধ করেছেন আওয়ামীলীগের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার বিকেলে আওয়ামীলীগ, শ্রমিকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগসহ সহযোগী অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে টঙ্গী থানা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে উপস্থিত হয়। পরবর্তীতে আওয়ামীলীগের ব্যানারে মিছিলটি ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কের স্টেশন রোড, টঙ্গী বাজার প্রদক্ষিণ করে স্টেশন রোডে অবস্থান করে প্রায় এক ঘন্টা সড়ক অবরোধ করে রাখে। এতে রাস্তার দুই পাশে শত শত গাড়ী আটকে পড়ে। এ সময় অনেকে পায়ে হেটে যার যার গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে।

গত ২০ সেপ্টেম্বর গাজীপুর মহানগরীর আওয়ামীলীগের ১৯ নং থেকে ৫৭ নং পর্যন্ত ৩৯টি ওয়ার্ডের আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। ওই কমিটিতে আওয়ামী লীগের ‘দুঃসময়ের’ নেতাকর্মী ও ত্যাগীদের মূল্যায়ন করা হয়নি এবং ‘হাইব্রিড’ নেতাদের অন্তর্ভুক্তি করা হয়েছে অভিযোগ করে দলের নেতাকর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

অনতিবিলম্বে এই পকেট কমিটি বিলুপ্ত করে দুর্দিনের ত্যাগী নেতাকর্মীদের সমন্বয় নতুন করে কমিটি ঘোষণার দাবী জানান। এ সময় নেতাকর্মীরা মহাসড়কে বসে ‘অবৈধ কমিটি মানি না- মানব না, টাকার বিনিময়ে কমিটি মানি না-মানব না, পকেট কমিটি মানি না- মানবো না’, রিসোর্ট কমিটি বাতিল চাই, হলুদ কমিটির অবসান চাই, অযোগ্যদের ভীরে যোগ্য নেতাকর্মীরা অভিমানে ঘরে, প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন অবৈধ কমিটি মানি না মানবো না, বিএনপি জামায়াতের কমিটি মানি না মানবো না, আজমত-জাহাঙ্গীরের কমিটি মানবো না মানি নাসহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন, শ্রমিকলীগ নেতা মতিউর রহমান বি কম, টঙ্গী থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কে এম নাছির, সাবেক কাউন্সিলর সেলিম মিয়া, গাজীপুর মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি নূর মোহাম্মদ মামুন, মো: বিল্লাল হোসেন, মোয়াজ্জেম হোসেন, মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কাইয়ুম সরকার, গাজীপুর মহানগর যুবলীগ নেতা বিল্লাল হোসেন মোল্লা, টঙ্গী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি কাজী মঞ্জুর, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম, টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান সরকার বাবু, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা শাহীন হোসেন, যুবলীগ নেতা মনির হোসেন সাগর, কিরণ আহমেদ, আমির হামজা প্রমুখ।

এ বিষয়ে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি এড. আজমত উল্লা খান বলেন, যারা আন্দোলন করছেন তারা দু’একজন ছাড়া কোন আওয়ামীলীগের কেউ নয়, এরা সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী। অত্যন্ত চুলছেড়া বিশ্লেষণ আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। আওয়ামীলীগের পদপ্রত্যাশী কেউ আন্দোলন করেনি। একটি স্বার্থন্বেশী মহল উস্কানিতে এরা আন্দোলন করছে।

উল্লেখ্য, গত ২০ সেপ্টেম্বর রবিবার গাজীপুর মহানগরের ১৯ নং ওয়ার্ড থেকে ৫৭নং ওয়ার্ড পর্যন্ত ৩৯টি ওয়ার্ডে এক তরফা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান ও সাধারণ সম্পাদক (গাসিক মেয়র) জাহাঙ্গীর আলমের উপস্থিতিতে এ আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে একজন আহবায়ক, তিনজন যুগ্ম আহবায়ক ও একজনকে সদস্য সচিব করে পাঁচ সদস্যের কমিটি করা হয়।