Amar Praner Bangladesh

ঢাকায় মালয়েশিয়ার মন্ত্রী, শ্রমবাজার নিয়ে বৈঠক আজ

 

 

নিউজ ডেস্কঃ

 

মালয়েশিয়ায় শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে দুই দেশের কর্মকর্তা পর্যায়ের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক আজ বৃহস্পতিবার (২ জুন) অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকায় অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে অংশ নিতে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদের আমন্ত্রণে প্রতিনিধিদল নিয়ে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান বুধবার (১ জুন) রাতে মালয়েশিয়া ত্যাগ করেন।

মালয় মন্ত্রীর এ সফর ও বৈঠক নিয়ে আগ্রহী সংশ্লিষ্ট অনেক মহলই। প্রায় তিন বছর বন্ধ থাকা মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার চালু করতে গেল বছরের ডিসেম্বরে দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা স্বাক্ষর হয়।

বিভিন্ন জটিলতায় দেশটিতে এখনো কর্মী পাঠানো শুরু করা যায়নি। এমন পরিস্থিতিতে বুধবার রাতে ঢাকা সফরে এসেছেন মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী। এর আগে, গত ২৬ মে ঢাকায় এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও ২০ মে মালয়েশিয়ার পক্ষ থেকে তা স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এরপর সম্ভাব্য তারিখ ৩০ মে বলে জানায় দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়। পরবর্তীকালে সেই তারিখও চূড়ান্ত না করে বৈঠকের তারিখ ২ জুন নির্ধারণ করা হয়।

যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক মূলত কর্মকর্তা পর্যায়ে হয়ে থাকে। কিন্তু প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদের আমন্ত্রণে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রীর এই সফরে বাংলাদেশের জন্য দেশটির শ্রমবাজার উন্মুক্ত করতে ফলপ্রসূ আলোচনা হতে পারে বলে মনে করছেন প্রবাসখাত বিশ্লেষকরা।

এ দিকে মালয় মন্ত্রী ঢাকার উদ্দেশ্য রওয়ানা দেওয়ার আগে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নিলে বা ঢাকায় প্রতিবাদ জানালে, বাংলাদেশি নিয়োগকারীদের নিষিদ্ধ করা হবে।

মন্ত্রীর বরাতে দেশটির মালয় মেইলে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, বাংলাদেশি নিয়োগকারীদের সংখ্যা সীমিত করার জন্য তার মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের হুমকির কারণে তিনি নিজেদের নাগরিকদের এখানে শ্রমিক হিসেবে পাঠানোর অনুমতি দিয়েছেন।

মন্ত্রী বলেছেন, আমি ভয় পাই না। তারা যতই হুমকি দেবে, আমি ততই নিষেধ করব! প্রায় দুই হাজার নিয়োগকারী মালয়েশিয়ায় শ্রম সরবরাহের জন্য একটি উন্মুক্ত বাজারের দাবিতে রাজধানীতে আন্দোলনে যাওয়ার হুমকি দিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, যদি সিন্ডিকেটকে বাজার নিয়ন্ত্রণ করার অনুমতি দেওয়া হয় কিন্তু নিয়োগের খরচ জনপ্রতি এক লাখ ২০ হাজার টাকা (পাঁচ হাজার ৯০০ রিঙ্গিত) থেকে বেড়ে সাড়ে চার লাখ টাকা (২২ হাজার ২০০ রিঙ্গিত) হবে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ডিসেম্বর মাসে মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশ বাংলাদেশি কর্মী নিয়োগের বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর করে। যা ২০২৬ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত পাঁচ বছরের জন্য কার্যকর হয়।

সারাভানান বিবৃতির মাধ্যমে বলেছেন, সমঝোতা স্মারকে উভয় দেশের দায়িত্বের যে রূপরেখা দেওয়া হয়েছে। তাতে মালয়েশিয়ার নিয়োগকর্তা ও বাংলাদেশের শ্রমিকদের পাশাপাশি উভয় দেশের বেসরকারি কর্মসংস্থান সংস্থার দায়িত্বগুলো অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।