Amar Praner Bangladesh

তেঁতুলতলা মাঠে থানা নয়, খেলার মাঠ রাখার দাবি

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

রাজধানীর কলাবাগানে তেঁতুলতলা মাঠে থানার ভবন নির্মাণ না করে খেলার মাঠ রাখার দাবি জানিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা।

এছাড়া তারা এলাকাবাসীকে হয়রানি না করা, মা ও ছেলেকে থানায় আটকে রাখা, গতকালের ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত এবং দোষীদের শাস্তি দেওয়ারও দাবি জানান।

সোমবার (২৫ এপ্রিল) সকাল ১১টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনি হলে সংবাদ সম্মেলন তারা এসব দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, তেঁতুলতলা মাঠে কলাবাগান পুলিশের থানা ভবন নির্মাণ করাকে কেন্দ্র করে প্রতিবাদ করায় রোববার (২৪ এপ্রিল) সকালে উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সংগীত বিভাগের কর্মী সৈয়দা রত্না ও তার ছেলে ইসা আব্দুল্লাহ সাদেকিন পিয়াংশুককে কলাবাগান থানায় আটকে রাখা হয়। পরবর্তীতে মধ্যরাতে কলাবাগান থানা পুলিশ মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয় তাদের।

বক্তারা বলেন, তাদের আটকের বিষয়ে পুলিশ নির্দিষ্ট করে কোনো কথা বলেনি। তাদের কাউকে ফোন করেও পাওয়া যায়নি। সারাদিন একজন নারী ও তার ১৭ বছরের ছেলেকে আটকে রেখেছে, এটা আমাদের জানানো হয়নি। আমাদের থানায় ঢুকতে দেয়নি। ভারপ্রাপ্ত ও সেকেন্ড অফিসার সারাদিন থানায় ছিলেন না, ফোন ধরেননি।

লিখিত বক্তব্যে তারা বলেন, ৫০ বছর ধরে ব্যবহার করা এলাকাবাসীর একমাত্র মাঠের জায়গায় কোনোভাবে থানাভবন নির্মাণ করা যাবে না। এখানে এলাকার ছেলে-মেয়েরা খেলাধুলা করবে। ঈদের জামাত হবে। সকালে এলাকাবাসী হাঁটবে।

তারা বলেন, আমরা জেনেছি, ভূমি মন্ত্রণালয় ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই মাঠকে থানা বানানোর অনুমতি দিয়েছে। আমরা এই আদেশের তীব্র নিন্দা জানাই।

বক্তারা নিন্দা জানিয়ে বলেন, এর আগেও শিশুরা এই মাঠে খেলার কারণে তাদের কান ধরে উঠবস করিয়েছে পুলিশ। আমরা এর নিন্দা জানাই। গতকাল সারাদিন আটক রেখে অবৈধভাবে মুচলেকা নেওয়ার নিন্দা জানাই।

কলাবাগানের এই মাঠ রক্ষায় আজ বিকেল ৩টায় তেঁতুলতলা মাঠের সামনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ হবে বলেও জানান বক্তারা। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নিজেরা করির খুশি কবির, বেলার সৈয়দ রিজওয়ানা হাসান, বাপার স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন, স্থপতি ইকবাল হাবীব।

এছাড়া টিআইবি, উদিচী শিল্পী গোষ্ঠী, নারীপক্ষসহ বিভিন্ন সংগঠন এই আন্দোলনের সঙ্গে একাত্বতা প্রকাশ করেন।