Amar Praner Bangladesh

ত্রিশালে গৃহবধূকে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:

ময়মনসিংহের ত্রিশালে গৃহবধূকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার নাটক সাজানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই নিয়ে বিভিন্ন মহলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। ঘটনাটি স্থানীয়দের মাঝে ব্যাপক আলোড়ন ও তোলপাড় দেখা দিলেও ঘটনার চারদিন পেরিয়ে গেলেও এর সঠিক রহস্য উদঘাটন না হওয়ায় এবং অপরাধীদের আইনের আওতায় না আনায় গৃহবধূর নিকট আত্মীয় ও পরিবারের সদস্যদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলা বালিয়ার পাড় নামক এলাকায়। নিহত গৃহবধূ নাসিমার ছোট ভাই হারুন অর রশিদ ও তার পরিবারের দেওয়া অভিযোগ মোতাবেক জানা যায়, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার মরিচারচর গ্রামের মৃত হামেদ আলীর মেয়ে নাসিমা খাতুনকে বিগত প্রায় ১৫ বছর পূর্বে ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক ত্রিশালের বালিয়ারপাড় এলাকার সিরাজ আলী পুত্র সাইদুল ইসলামের নিকট বিবাহ দেওয়া হয়। বিয়ের পর নাসিমা দুই সন্তানের জননী হলেও যৌতুক ও বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে তাদের সংসারে ঝগড়া কলহ লেগেই থাকতো। হঠাৎ গত ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং তারিখে নাসিমার পিত্রালয়ে সংবাদ পৌছানো হয় নাসিমা আত্মহত্যা করেছে এবং তার স্বামীর বাড়ী থেকে নিহতের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে হঠাৎ কি কারণে কেনই বা নাসিমা আত্মহত্যা করবে এই নিয়ে বিভিন্ন মহলে এবং তার পরিবারের মধ্যে জল্পনা কল্পনার অন্ত নেই। শুরু হয়েছে বিভিন্ন মহলের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। ঘটনাটিকে কেউ আত্মহত্যা বলে দাবী করছেন আবার কেহ হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলে দাবী করছেন। তবে নাসিমার পরিবারের দাবী তাকে হত্যা করে লাশ বুঝিয়ে রেখেছে স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা। ঘটনার চারদিন পেরিয়ে গেলেও আজ পর্যন্ত গৃহবধূ নাসিমার মৃত্যুর সঠিক কোন কারণ উদঘাটন না হওয়ায় নিহত নাসিমার নিকট আত্মীয় ও স্থানীয়দের মাঝে চরম ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। উক্ত ঘটনার সঠিক তদন্ত পূর্বক প্রকৃত রহস্য উদঘাটন ও দোষীদের শাস্তির বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ায় জোড়ালে দাবী উঠেছে নিহতের পরিবার ও স্বজনদের মধ্য থেকে।