Amar Praner Bangladesh

দক্ষিণাঞ্চলে আমন ধান কাটার মহোৎসব

বি এম রাকিব হাসান, খুলনা ব্যুরো:
খুলনার দাকোপে এবার আমন ধান কাটার মহাৎসবে পুরুষের পাশাপাশি নারীদেরও সমান তালে জমিতে ধান কাটতে দেখা যাচ্ছে তারাও পুরুষের চেয়ে পিছিয়ে নেই। চলতি মৌসুমে দাকোপ উপজেলার বাজুয়াতে ধান চাষে নানা প্রতিকুল অবস্থা মোকাবেলা করেও আমন ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে বলে জানিয়েছে চাষীরা। তারা বলে এক বুক আশা নিয়ে বসে ছিলাম জমিতে আমন ধানের বাম্পার ফলের আশায় তা আজ সার্থক হয়েছে। তাই বাজুয়ার আমন ধানের জমিতে এখন চলছে ধান কাটার মহাউৎসব। এখানে পুরুষরা যেভাবে ধান কাটছে নারীরাও একই ভাবে জমিতে ধান কাটছে।
জমিতে ধান কাটতে আসা নারী শ্রমিক বাজুয়া চাঁদপাড়া ও কাঁকড়াবুনিয়া গ্রামের বীনা মন্ডল, অসীমা সরকার, স্বপ্না রায়, সাধনা রায়, গীতা মিস্ত্রি, মানা বোষনাম, সুনিতা বৈদ্য, অলকা বোষনাম, অর্পনা বোষনাম, আশা মন্ডল, ঝর্না রায়, স্বারতী স্বর্ণকার, স্বীমা বৈদ্য, সরলা বৈদ্য জানান আমরা ২০ জনের একটি টিম প্রতিদিন জমিতে ধান কাটছি। তারা বলে এতে করে আমরা ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়ার খরচ সহ আমাদের সংসার চালাতেও পুরুষের দেখে তাকিয়ে থাকতে হয় না। তারা বলে প্রতিদিন আমরা ৯-১০ ঘন্টা করে জমিতে ধান কাটছি প্রতি ঘন্টা ৪০-৪৫টাকা করে কাজ করি তাতে করে দিনে ৩৫০-৪৫০টাকা পর্যন্ত আমরা প্রত্যেকে পাই। এভাবে আমরা ধানের মৌসুমে জমিতে ধান কাটি পরে তরমুজের মৌসুমে আমরা জমিতে তরমুজ বই এরপর আমরা ধান রোপের কাজেও পুরুষের সাথে পাল্লা দিয়ে জমিতে ধান রোপন করি। আমাদের মত এখানে অনেক মহিলারা এভাবে ঘন্টা চুকতে কাজ করছে এবং সকলেই সমান ভাবে তাদের শ্রমের মূল্যে পাচ্ছে।
কৃষকরা বলেন, বাজারে ধানের দামও বেশি আছে ফলে এবার আমাদের সকল আমন চাষীদের দুঃখ লাঘব হবে।
দাকোপ উপজেলার শ্রেষ্ঠ চাষী হিসেবে নির্বাচিত বাজুয়া ইউপি চেয়ারম্যান রঘুনাথ রায় জানান, এবার আমনের অধিক ফলন হয়েছে। কৃষকরা তরমুজ চাষের পর পর একই জমিতে আউশ চাষ করে সকলে ভাল ফসল পেয়েছে তার পরে তারা আমন চাষেও অধিক ফলন পাচ্ছে। জমিতে অধিক ফলন হওয়ায় কৃষকরা যেমন খুশি তেমন নারী-পুরুষ সকলেই জমিতে ধান কাটার কাজে নিয়োজিত থেকে যতেষ্ট আয় করার সুযোগ পাচ্ছে। দাকোপ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মোছাদ্দেক হোসেন জানান এবার দাকোপে ১৮,৯০০ হেক্টর জমিতে আমনের চাষাবাদ হয়েছে। আমন ধানের বাম্পার ফলন হওয়ায় এছাড়া বাজারে আমন ধানের দামও বৃদ্ধি পাওয়ায় আগামীতে কৃষকরা আরো বেশি জমিতে আমনের চাষাবাদ করবে বলে আশা করা যায়।