Amar Praner Bangladesh

নবাগত গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কার্যকরী ভূমিকায় জনমনে এখন স্বস্তি

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

একদিকে বিদ্যুতের লোডশেডিং অন্যদিকে যানজট মুক্ত গাজীপুর গড়ার প্রত্যয়ে নবাগত গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কার্যকরী ভূমিকায় জনমনে এখন স্বস্তি।

গত ৬ দিনে ১ হাজার ৩৮টি অবৈধ অটোরিকশা জব্দ করা হয়েছে । আর এর জন্য আটটি বাস ডাম্পিংয়েরও ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাঁচটি বাস ও দুটি কভার ভেন জরিমানা করে অনেক টাকা এখন সরকারি খাতে। যানজট মুক্ত গাজীপুর করনের ক্ষেত্রে যেই কার্যকরী ভূমিকা মাননীয় পুলিশ কমিশনার মোল্লা নজরুল পালন করেছেন তারই ধারাবাহিকতায় কতিপয় গ্যারেজ মালিকরা এখন বেপরোয়া।

গ্যারেজ মালিকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, গাজীপুর ,চৌরাস্তা ,বোর্ড বাজার, কোনাবাড়ী, স্টেশন রোড, মাছিমপুর, নতুন বাজার ,বউবাজার, জামাই বাজার ,মধুমিতা, শিলমুন ,tnt আমতলী, ব্যাংকের মাঠ বস্তি ,এরশাদ নগর, টঙ্গী রেলস্টেশন সহ বিভিন্ন জায়গায় কয়েক শত অবৈধ গ্যারেজ এর মালিক এখন বেপরোয়া।

প্রতিদিন হাজার হাজার অবৈধ অটো রিক্সার চার্জ দেওয়া হচ্ছে এইসব গ্যারেজের ভিতরে গোপনে।

টঙ্গীর দক্ষিণ আরিচপুর গ্যারেজের মালিকরা জানান, গরু বাজারের বিশাল অংশে জাকির মিয়ার গ্যারেজ, জাকিরের বোন ফিরুর গ্যারেজ, শুক্কুরের গ্যারেজ, খোরশেদের গ্যারেজ, বশিরের গ্যারেজ ,সাইফুলের গ্যারেজ সহ কয়েক শত গ্যারেজের মালিক অবৈধভাবে বিদ্যুৎ বিল না দিয়ে সরকারের চোখ ফাঁকি দিয়ে প্রতিদিন অবৈধ অটো রিক্সা চার্জ করে দেশের বিদ্যুতের ঘাটতি করেই যাচ্ছে।

শূকরের গ্যারেজের শুকুর বলেন, মঙ্গল মাদবর কে গত ১৬ বছর যাবত আট হাজার টাকা ভাড়া দিয়ে জন প্রতি ২০০ অটোওয়ালা দের কাছ থেকে প্রতি মাসে ৭০০ থেকে ১৫০০ করে টাকা নেন।

অন্যদিকে অটো ড্রাইভাররা জানান, লোন নিয়ে অটো কিনে কিস্তিতে টাকা পরিশোধ করেও অটো গ্যারেজের মালিকদের দ্বারা নেমে আসে তাদের ওপর নানাবিদ অত্যাচার ও নির্যাতন। তারা এখন গ্যারেজের মালিকদের কাছে জিম্মি।

অনুসন্ধানে দেখা যায় ,প্রতিটি রিক্সার অবৈধ গ্যারেজ রয়েছে সরকারি রেলের পরিত্যক্ত জায়গায় অবস্থিত। কতিপয় দুর্নীতিবাজ চাঁদাবাজেরা সুযোগ বুঝে এই সমস্ত অসহায় লোকদের কাছ থেকে এলাকার প্রভাব খাটিয়ে কোটি কোটি টাকা আয় করে যাচ্ছে, অন্যদিকে দেশের বিদ্যুতের ঘাটতি নিয়ে সরকার এখন বেসামাল।

অচিরেই অবৈধ গ্যারেজের মালিকদের লাগাম ধরতে না পারলে মাননীয় পুলিশ কমিশনার গাজীপুরের এই জরুরী পদক্ষেপ আরো জোরালো হবে যদি এই সমস্ত গ্যারেজ মালিকদের কে উদ্বাস্তু করা হয় তবে দেশের বিদ্যুতের ঘাটতি সঠিক হবে অন্যদিকে যানজটমুক্ত নগরী ফিরে পাবে এলাকাবাসী।