Amar Praner Bangladesh

নীলফামারী জলঢাকায় বিএনপি’র বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

 

 

নীলফামারী প্রতিনিধিঃ

জ্বালানী তেল, পরিবহন ভাড়াসহ সকল দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি এবং ভোলায় পুলিশ কর্তৃক গুলি করে ছাত্রনেতা নূরে আলম ও স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আব্দুর রহিমকে হত্যার প্রতিবাদে নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আশু রোগ মুক্তি ও নিঃ শর্ত মুক্তি কামনা কামনায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে সারাদেশের ন্যায় নীলফামারী জলঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জলঢাকা উপজেলা বিএনপি ও পৌর বিএনপি।

গতকাল ১০ই সেপ্টেম্বর শনিবার সকালে দলটির অস্থায়ী কার্যালয় পেট্টোলপাম্প সংলগ্ন একটি মিলচাতালে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশে উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক পৌর মেয়র ফাহমিদ ফয়সাল চৌধুরী কমেটের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা রংপুর বিভাগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নীলফামারী জেলা বিএনপি’র সভাপতি আ.খ.ম. আলমগীর সরকার, সাধারণ সম্পাদক জহুরুল আলম, ডোমার বিএনপি’র সভাপতি রেয়াজুল ইসলাম, ডিমলা উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি অধ্যক্ষ মনোয়ার হোসেন, নীলফামারী জেলা সদর বিএনপি’র সভাপতি রাহেদুল ইসলাম দোলন, ডোমার পৌর বিএনপি’র সভাপতি আনিছুর রহমান আনু, জলঢাকা পৌর বিএনপি’র সভাপতি আলহাজ্ব রশিদুল ইসলাম বাঙালী, নীলফামারী পৌর বিএনপি’র সভাপতি মাহবুবুর রহমান। এ সময় বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপি নেতা মোর্শেদ আলম, উপজেলা তাতীদল নেতা ওমর ফারুক সাবু,যুবদল নেতা আবু তোরাব আহমেদ ইমন, তাতীদল সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বাবু, যুবদল নেতা ছাদেকুল ইসলাম সাদেক প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম সরকারের বিভিন্ন সমালোচনা করে বলেন, এবার লড়াই করবো হারার জন্য নয় জিতার জন্য। নির্দলিয় সরকারের মাঝে সুষ্ঠু নির্বাচনের আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, দেশের এমন কোন নাগরিক নেই যে তারা ভালো আছেন।
কৃষকের উৎপাদনশীল প্রয়োজনীয় পন্যের দাম লাগাম টানা উর্ধ্বমুখি করা হয়েছে। যার ফলে আজ সাধারণ সম্পাদক বড় অসহায়।

সকল দ্রব্যমুল্যের যে দাম নির্ধারন করে দিয়েছে সরকার তাতে জনসাধারণের নাভিশ্বাস অবস্থা। সভাপতিত্বের বক্তব্যে উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি ফাহমিদ ফয়সাল চৌধুরী কমেট স্থানীয় আওয়ামিলীগ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য বলেন, আইনের সহায়তা বাদে মাঠে নামেন দেখেন জলঢাকার রাজপথে থাকতে পারেন কি না। আপনাদের ( আওয়ামিলীগের ) জনসমর্থন যে শুন্যের কোঠায় তা প্রমান হবে রাজপথে। ভোলায় পুলিশ কর্তৃক গুলিবিদ্ধ হয়ে হত্যার বিষয়ে তিনি বলেন, আর যদি কোন ভাইয়ের বুকে গুলি চলে তবে জাতিয়তাবাদী দল বিএনপি তার দাঁত ভাঙ্গা জবাব দিবে। তবে বিএনপির এ সমাবেশকে ঘিরে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ছিল তৎপর ফলে সমাবেশ ব্যতয় বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বাহিরে বেড়াতে পারেনি দলটি। উক্ত বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন জলঢাকা উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক ময়নুল ইসলাম ও পৌর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক গোলাম সারোয়ার ভুট্টু।