Amar Praner Bangladesh

পাত্র দেখে ফেরার পথে গণধর্ষণের স্বীকার পার্লার কর্মী 

 

 

ওয়াসিম আকরাম, গাজীপুর থেকেঃ

 

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার শিমুলতলা গ্রামে এক নারী পার্লার কর্মীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগে দু’জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত শুক্রবার সাড়ে দশটার দিকে উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের শিমুলতলা গ্রামের বলদীঘাট বাজারে ওই ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী নারী (১৮) ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশালে তার বাড়ি। সে স্থানীয় একটি বিউটি পার্লারে কাজ করে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়ন শিমুলতলা গ্রামের মৃত নূরুল ইসলামের ছেলে কামরুজ্জামান (৪০) ও একই ইউনিয়নের ধামলই গ্রামের আবুল কালামের ছেলে মো. গোলাপ মিয়া (৩৩)।

থানায় মামলা সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী নারী স্থানীয় কাওরাইদ ইউনিয়নের জনৈক মোস্তাফার সাথে প্রেমের সম্পর্কের হয়। এই সুবাদে গত ১৫ অক্টোবর সন্ধ্যার ছয়টার সময় ভাগীনির পাত্র দেখতে এক বান্ধবীকে নিয়ে পাত্র আল আমিনের বাড়িতে যায়। সেখান থেকে পাত্র দেখা শেষ করে রাত দশটার দিকে কাওরাইদ বাজার থেকে সিএনজি যোগে ত্রিশালের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। একপর্যায়ে রাত সাড়ে দশটার সময় শিমুলতলা এলাকার আসামিসহ অজ্ঞাতনামা একজন আসামি একত্রিত হয়ে ভুক্তভোগী নারীর সিএনজি আটকায়। এরপর ভুক্তভোগী নারীকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে বলদীঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন ভবনের একটি রুমে নেয়। এরপর একটি রুমের ভেতর নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

ভুক্তভোগী নারী জানায়, তার বান্ধবী স্মৃতি আক্তারকে অভিযুক্তরা প্রথমে একটি রুমের ভেতর আটকিয়ে রাখে। এরপর তাকে আরেকটি রুমে নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

স্থানীয় এলাকার আতিক হোসেন বলেন, এ অবস্থায় ভুক্তভোগী চিৎকার করার পর আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে অভিযুক্তরা তাকে ফেলে চলে যায়। স্থানীয়দের দেয়া তথ্য মতে এর কিছুক্ষণ পর টহল পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ভুক্তভোগীর দেয়া তথ্য মতে দুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

শ্রীপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক অপারেশন মো. গোলাম সারোয়ার বলেন, গণধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। এঘটনায় দু’জন আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।