Amar Praner Bangladesh

পিরোজপুরের ৭ উপজেলার জন প্রতিনিধিদের নিয়ে ভান্ডারিয়ায় মতবিনিময় সভা

 

(পুনরায় প্রার্থী হিসেবে মহিউদ্দিন মহারাজকে ৭ শতাধিক ভোটারের প্রকাশ্যে সমর্থন)

 

মোঃ লোকমান হোসেন, ভান্ডারিয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি :

পিরোজপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে এবং পিরোজপুর জেলা পরিষদের মেয়াদ পুর্তিতে জন প্রতিনিধিদের নিয়ে গতকাল শনিবার দুপুরে উপজেলার হরিণপালা ইকোপার্কে এক মত বিনিময় সভায় মোট ভোটার ৭৪৭ জনের মধ্যে ৭০৪ জন ভোটারই প্রকাশ্যে জেলা পরিষদের বর্তমান প্রশাসক ও সদ্য সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মহারাজের পক্ষে সমর্থন দিয়েছেন। এ সব সদস্যরা এর আগে স্বাক্ষর দিয়ে লিখিতভাবে সমর্থন জানান। পিরোজপুরে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এ সংক্রান্ত সমর্থনে ইতি মধ্যে চিঠি পাঠিয়েছেন। মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিরোজপুর-২ আসনের সাংসদ, সাবেক মন্ত্রী, জাতীয় পার্টি জেপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু।

সভায় পিরোজপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন মহারাজ এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মিরাজুল ইসলাম, ইন্দুরকানী উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড মতিউর রহমান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুল হক জোমাদ্দার, মাহিবুল হোসেন মাহিম, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম সরওয়ার জোমাদ্দার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মশিউর রহমান, এস, এম বায়জিদ, নাসরিন আক্তার, দিলরুবা আক্তার, নাসিমা আক্তার, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান ফুলু, সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউল আহসান গাজী, উপজেলা আ.লীগ সভাপতি ফায়জুর রশিদ খসরু, স্বরুপকাঠী উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হক, পৌর মেয়র গোলাম কবির, মঠবাড়ীয়া উপজেলা আ.লীগ এর সাধারণ সম্পাদক মো. সেলীম মাতুব্বর, টুঙ্গিপাড়া আওয়ামীলীগ এর দপ্তর সম্পাদক, হাফিজুর রশিদ তারেকসহ পিরোজপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে আগত উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, কাউন্সিলর, ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্যগণ ও জেলার ৭ উপজেলার আ.লীগ এর সভাপতি ও সম্পাদকগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, নির্বাচন কমিশন থেকে ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ১৭ই অক্টোবর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দেশের ৬১টি জেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোট-গ্রহণ। তাই আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন জেলার প্রার্থীরা দৌঁড়ঝাপ শুরু করেছেন। তবে আওয়ামী লীগের একটি বিস্বস্ত সুত্র জানিয়েছে, বেশির ভাগ জেলাতেই বর্তমান জেলা পরিষদের প্রশাসক, যারা এর আগে গত ৫ বছর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তারাই দলীয় মনোনয়ন পেতে যাচ্ছেন। এসব মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকা এখন প্রধানমন্ত্রী হাতে রয়েছে। আগামী জেলা পরিষদের নির্বাচনে পিরোজপুরে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সম্ভাবনা আছে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক স¤পাদক, সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মহিউদ্দিন মহারাজের।

চলতি বছরের ১৭ এপ্রিল মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার পর পিরোজপুরসহ দেশের ৬১টি জেলায় জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানদেরই প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দেয় সরকার। সে হিসেবে এ বছরের ১৭ই এপ্রিল থেকে মহিউদ্দিন মহারাজ পিরোজপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান থাকাকালীন পিরোজপুর জেলার সকল জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজে অংশ নেন মহিউদ্দিন মহারাজ। বিশেষ করে সকল জনপ্রতিনিধিদের তিনি উন্নয়নমূলক কাজে সরাসরি সম্পৃক্ত করায় পিরোজপুরের গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত জেলা পরিষদের উন্নয়ন পৌঁছে গেছে। স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিদের মাঝে মহিউদ্দিন মহারাজের ব্যাপক জনপ্রিয়তা থাকায় আগামী নির্বাচনকে ঘিরে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে পিরোজপুর জেলা পরিষদের ভোটাররা।

৭টি উপজেলা নিয়ে গঠিত দক্ষিণের অন্যতম জেলা পিরোজপুর। যেখানে জেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ভোটার রয়েছেন ৭৪৭ জন। এরমধ্যে ৭০৪ জন ভোটারই জেলা পরিষদের বর্তমান প্রশাসক মো. মহিউদ্দিন মহারাজের পক্ষে স্বাক্ষর দিয়ে লিখিতভাবে সমর্থন জানিয়েছেন। আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সাক্ষর সম্বলিত একটি বই পাঠিয়েছেন বলেও জানা যায়। আইন অনুযায়ী, সংশিষ্ট জেলার উপজেলা পরিষদ, ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে থাকেন। তাদের প্রত্যক্ষ ভোটেই নির্বাচিত হন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। নাজিরপুর উপজেলা পরিষদে ৯টি ইউনিয়নে জনপ্রতিনিধি আছে ১২০ জন এই উপজেলার সকল ভোটার মহারাজের পক্ষে স্বাক্ষর দিয়ে সমর্থন জানিয়েছেন। নেছারাবাদ উপজেলা পরিষদে ইউনিয়ন ১০টি ও ১টি পৌরসভা। যেখানে মোট ভোটার সংখ্যা ১৪৬। যার মধ্যে মহিউদ্দিন মহারাজের পক্ষে স্বাক্ষর করেছেন ১৪০ জন।

পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদে ৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ১০৭ জন ভোটারের মধ্যে স্বাক্ষর দিয়ে সমর্থন করেছেন ৭৯ জন। পিরোজপুর-২ আসন ভান্ডারিয়া সদর উপজেলায় ৬টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার ৯২ জন ভোটারের সকলেই সমর্থন করেছেন তাকে। কাউখালী এবং ইন্দুরকানী উপজেলায় ৫টি করে ইউনিয়নের ৬৮ জন করে ভোটারের সকলেই স্বাক্ষর দিয়ে মহিউদ্দিন মহারাজকে সমর্থন জানিয়েছেন। এছাড়া পিরোজপুর-৩ আসন, মঠবাড়িয়া উপজেলায় ১১টি ইউনিয়নের ১৪৬ জন ভোটারের মধ্যে ১৩৭ জনই স্বাক্ষর দিয়ে সমর্থন জানিয়েছেন মহারাজকে।