Amar Praner Bangladesh

পিরোজপুরে যুবলীগ কর্মীর হাত বিচ্ছিন্ন করার ঘটনায় মামলা

 

 

আল-আমিন হোসাইন, পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ

পিরোজপুরে নাদিম খান নামে এক যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হাত বিচ্ছিন্ন করার ঘটনায় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এসএম বায়েজিদ হোসেন ও কদমতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শিহাব হোসেনসহ ৩২ জন নামীয় এবং অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) রাতে আহত নাদিম খানের ফুফু তামান্না বেগম ও তার স্বামী রিপন খান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্ল আজাদ হোসেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, হামলাকারীরা যুবলীগ কর্মী নাদিম খানকে হত্যার উদ্দেশে কুপিয়ে হাত বিচ্ছিন্ন করে এবং তার শরীরে আরও ১৭/১৮টি ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ দেয়। আহত যুবলীগ কর্মী নাদিম খান (৩৫) সদর উপজেলার তেজদাসকাঠী এলাকার নজরুল ইসলাম খানের ছেলে ও এ সময় আহত অপরজন মাসুদ শেখ (২৫) উত্তর কদমতলা এলাকার আব্দুর রহিম শেখের ছেলে। তারা উভয়েই ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হানিফ খান গ্রুপের কর্মী।

পিরোজপুর সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আ জ ম মাসুদুজ্জামান জানান, যুবলীগ কর্মীর হাতের কব্জি কাটার ঘটনায় আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা করা হচ্ছে। জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলার সদর উপজেলার কদমতলা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শিহাব হোসেন ও সাবেক চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হানিফ খান গ্রুপের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারের বিরোধের জেরে যুবলীগ কর্মী নাদিমকে কুপিয়ে হাত বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। আহত নাদিম বর্তমানে ঢাকা পঙ্গ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।