Amar Praner Bangladesh

ফকিরহাটে কথিত ফেসবুক সাংবাদিক কাজী ইয়াছিন এর বিরুদ্ধে থানায় জিডি

 

মেহেদী হাসান নয়ন, বাগেরহাট প্রতিনিধি :

 

বাগেরহাটের ফকিরহাটে কাজী আজহার আলী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন কে দেখে নেয়ার হুমকি দেওয়ায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে ফকিরহাট মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন। সাধারণ ডায়েরিতে তিনি উল্লেখ করেন ঈদুল আজহার ছুটি শেষে গত শনিবার প্রথম কর্মদিবসে বেলা আনুমানিক ১ টায় অধ্যাক্ষের কক্ষে কাজী আজাহার আলী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন সহ কলেজের গভানিং বডির তিন জন সদস্য বসে ছিলেন হঠাৎ প্রনব কুমার ঘোষ অধ্যক্ষের কক্ষেঢুকে একটা চিঠি প্রদর্শন করে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে চেয়ার ছেড়ে তার রুম থেকে বের হয়ে যেতে বলেন।এবং বলেন আমরা আপনাকে অধ্যক্ষ হিসেবে মানি না।

একপর্যায়ে কলেজের অন্যান্য শিক্ষকগন এগিয়ে এলে তিনি কলেজ ত্যাগ করে চলে যায় তার কিছুক্ষণ পরে সাতশৈয়া গ্রামের ঘরজামাই মৃত কাজী সুলতানা এর ছেলে কথিত ফেসবুক সাংবাদিক কাজী ইয়াছিন সহ ইয়াছিন এর নেতৃত্বে সাথে কয়েকজন বহিরাগতদের নিয়ে কলেজে যেয়ে ব্যাপক তান্ডব চালিয়ে মনজুরুল ইসলামকে আক্রমন করে এবং ভারপ্রাপ্ত অধ্যাক্ষকে খুজতে থাকে এবং অধ্যক্ষের কক্ষে তালা লাগানোর চেষ্টা করে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে এবং মারপিট করতে উদ্ধত হয়।কাজী ইয়াছিন এই ঘটনার আগে সকাল ১১ টায় কলেজে যেয়ে উপস্থিত শিক্ষকদের সামনে বলেন এই কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষর সকল হিসাব কড়ায় গন্ডায় বুঝে নিবো এবং তাকে দেখে নিবো।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফকিরহাট মডেল থানার সেন্সাস আলীমুজ্জামান বলেন আমাদের থানায় ইয়াসিনের বিরুদ্ধে কাজী আজহার আলী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে এ বিষয়ে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। উল্লেখ্য কথিত ফেসবুক সাংবাদিক কাজে আসিন কিছুদিন পূর্বে বীর মুক্তিযোদ্ধার কাছ থেকে সাদা ৫ লক্ষ টাকা চাঁদা আদায়ের দায়ে জেলহাজতে প্রেরণ করে বাগেরহাট চিপ জুডিশিয়াল ম্যাজিট্রট।এছাড়াও কাজী ইয়াছিন এর বিরুদ্ধে নারীদের দিয়ে দেহ ব্যাবসা,হেটেলে নিম্ন মানের খাবার বিক্রি, মানুষকে ফেসবুকে দুই লাইন লিখে জুজুবুড়ির ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজী সহ একাধিক অপকর্মে অভিযোগ রয়েছে।