Amar Praner Bangladesh

বকশীগঞ্জে অসহায় হাজেরার আজীবন ভরণ পোষনের দায়িত্ব নিলেন ইউএনও লিজা

 

 

জামালপুর প্রতিনিধিঃ

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার শতবর্ষী অসহায় হাজেরা বেওয়ার আজীবন ভরণ পোষনের দায়িত্ব নিয়েছেন বকশীগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার মুনমুন জাহান লিজা। ২৯ এপ্রিল শুক্রবার খাদ্য সামগ্রী ও ঈদ উপহার নিয়ে অসহায় হাজেরা বেওয়ার বাড়িতে গিয়ে সাংবাদিকদের সামনে হাজেরা বেওয়ার আজীবন ভরণ পোষনের দায়িত্ব নেওয়ার ঘোষনা দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুন মুন জাহান লিজা।

জানা যায়, জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার বাট্টাজোড় পলাশতলা গ্রামের শতবর্ষী অসহায় হাজেরা বেওয়া প্রায় ৫০ বছর যাবৎ ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলেন। গণমাধ্যম কর্মীদের মাধ্যমে বিষয়টি অবগত হয়ে।

বকশীগঞ্জ থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম হাজেরার ভরণ পোষনের দায়িত্ব নেন। বিগত ৩ মাস পূর্বে বকশীগঞ্জ থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম বকশীগঞ্জ থানা থেকে বদলী হন।এরপর বিপাকে পড়ে যায় অসহায় হাজেরা বেওয়া। বিষয়টি গণমাধ্যম কর্মীদের মাধ্যমে জানতে পেরে বকশীগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার মুনমুন জাহান লিজা ছুটে যান হাজেরার বাড়ীতে। উপজেলার নির্বাহী অফিসার মুন মুন জাহান লিজা হাফেজার বাড়িতে গিয়ে হাজেরার অবস্থা দেখে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি হাজেরার সার্বিক খোজ খবর নেন এবং কিছু সময় হাজেরার পাশে অবস্থান করেন।

উপজেলার নির্বাহী অফিসার মুনমুন জাহান লিজা উপহার হিসেবে নগদ টাকা, চাল, ডাল,তেল, লবন, মাংস,চিনি, সেমাই, নতুন কাপড় ও সাবানসহ ৩ মাসের খোরাকের সমপরিমান পণ্য সামগ্রী হাজেরার হাতে তুলে দেন।একই সময় উপজেলার নির্বাহী অফিসারের উপস্থিতিতে বকশীগঞ্জ থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম কর্তৃক প্রদত্ত ২ হাজার টাকার সমপরিমান বিভিন্ন মালামাল ও নগদ টাকাও হাজেরা কে বুঝিয়ে দেওয়া হয়।ওই সময় উপজেলার নির্বাহী অফিসার মুনমুন জাহান লিজা সাংবাদিকদের জানান, হাজেরা ছাড়া পৃথিবীতে হাজেরার কেউ নেই।তাই মানবিক কারণে অসহায় হাজেরার আজীবন ভরণে পোষণের দায়িত্ব নিয়েছি। যত দিন হাজেরা বেচে থাকবে ততদিন প্রয়োজন মাফিক হাজেরাকে সহায়তা করা হবে।

শুধু তাই না হাজেরার সেবা যত্ন যিনি করবেন তাকেও সাধ্য মাফিক সহাযতা করা হবে বলে জানিয়েছেন।