Amar Praner Bangladesh

বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশে^ বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল- তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

আরফিন আরিফ, চট্টগ্রাম:

বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশ্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল, এমনই মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার উন্নয়নবান্ধব সরকার। এই সরকারের আমলে দেশের সর্বত্র সড়ক ও রেল যোগাযোগের ব্যাপক উন্নয়ন করা হয়েছে। দেশীয় অর্থায়নে পদ্মা সেতু এবং দেশের সর্ব প্রথম এই চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণ প্রকল্প সামগ্রিকভাবে সমৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বাক্ষর বহন করে। আমাদের মাথাপিছু আয় বেড়েছে, ক্রয় ক্ষমতা বেড়েছে দারিদ্রের হার কমেছে। আমরা ১২৩ ভাগ পর্যন্ত বেতন বৃদ্ধি করেছি। সরকারের সফলতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, গত অর্থবছরে আমাদের প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে ৬.৫ শতাংশ। আশা করি, অচিরেই প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশ ছাড়িয়ে যাবে। ৫ কোটি মানুষ নিম্নআয়ের স্তর থেকে মধ্যম আয়ের স্তরে উন্নীত হয়েছে। দারিদ্র্যের হার ৪১.৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২২.৪ শতাংশে নামিয়ে এনেছি। সরকারি ও বেসরকারিভাবে দেড় কোটি মানুষের চাকরি হয়েছে। এছাড়া আরও দশ লক্ষেরও বেশি মানুষ প্রবাসী শ্রমিক হিসাবে বিভিন্ন দেশে রয়েছেন। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ২৭ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে গেছে। আমার খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছি। বিদেশে চাল রপ্তানি করছি। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ৩ কোটি ৮৪ লাখ ১৮ হাজার মেট্রিক টন খাদ্যশস্য উৎপাদন হয়েছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনে সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়ে এখন ১৪ হাজার ৭৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সংখ্যা ১০০ অতিক্রম করেছে। এ বছরের পয়লা জানুয়ারি শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রায় ৩৩ কোটি ৩৭ লাখ ৬২ হাজার ৭৭২টি বই বিনা মূল্যে বিতরণ করেছি। প্রাথমিক থেকে ডিগ্রি পর্যন্ত ১ কোটি ২৮ লাখ শিক্ষার্থীকে বৃত্তি ও উপবৃত্তি দেওয়া হয়েছে। কমিউনিটি ক্লিনিক, ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মাধ্যমে গ্রামের মানুষকে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হচ্ছে। মানুষ বিনা মূল্যে ৩২ ধরনের ওষুধ পাচ্ছেন। ৫ হাজার ২৭৫টি ডিজিটাল সেন্টার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে ২০০ ধরনের ডিজিটাল সেবা প্রদান করা হচ্ছে। শিক্ষার মান বেড়েছে। এই সব কিছুতেই উন্নতী ঘটেছে বর্তমান সরকার আমলে। কারণ বর্তমান সরকার উন্নয়ন বান্ধব সরকার। এই মাস বিজয়ের মাস। ৩০ লক্ষ শহীদের আত্মত্যাগ ও ২ লক্ষ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে এই মাসেই আমরা বিজয় অর্জন করেছি। পাকিস্তানী দোষর রাজাকার আলবদররা পাকিস্তানীদের সাহায্য করেছিল। সেই যুদ্ধাপরাধী রাজাকারদের আমরা শাস্তি দিয়েছি।
তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আপনারা দেখেছেন, ২০১৩ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট এক হয়ে ট্রেন-গাড়িতে পেট্রল ঢেলে জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে ও বোমা মেরে হত্যা করেছে। পুরো দেশটাকে ভুতুড়ে দেশে পরিণত করেছিল। যেই যুদ্ধাপরাধী রাজাররা আমাদের দেশের বিরুদ্ধে গিয়ে পাকিস্তানীদের পক্ষ নিয়ে আমাদের দেশে লুটপাট, হত্যা, গুম, খুন ধর্ষণ করেছে সেই রাজারদের ও জঙ্গী সংগঠন জামায়াতকে লালন পালন করে এই বিএনপি। এরা যদি আগামী নির্বাচনে জয়ী হয় তাহলে এই উজ্জ্বল সুন্দর দেশটাকে আবার অন্ধকার ভুতুড়ে করে ফেলবে বোমা মেরে, প্রেট্রল ঢেলে মানুষ হত্যা করে। গতকাল ২৩ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহর ধানাধীন পি. এইচ. আমীন একাডেমীর ৭৫ বছর পূর্তি উদযাপন অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বর্তমান সংসদ সদস্য ও ৭৫ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানের প্রধান উপদেষ্টা ডা. আফসারুল আমীন, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, চট্টগ্রাম বিশ^দ্যিালয়ের উপচার্য প্রফেসর ডা. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী প্রমুখ। এছাড়া ছিলেন ৭৫ বছর উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক জাহিদ চৌধুরী ও সদস্য সচিব এরশাদুল আমীন।
কোটি টাকা বাজেটের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের বক্তব্য ছাড়াও সাবেক শিক্ষার্থীদের স্মৃতিচারণ হয়েছে অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে। সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ছাড়াও ১ম দিন (গতকাল) জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ এবং মিলা গান করে দর্শক মাতিয়েছেন। আজ দ্বিতীয় দিনের আয়োজনে আরেক জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী নকুল কুমার বিশ্বাস ছাড়াও থাকবে দেশসেরা ব্যান্ডতারকা জেমস।