Amar Praner Bangladesh

বঙ্গমাতা ছিলেন বঙ্গবন্ধুর অনুপ্রেরণা : প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

 

 

আল-আমিন হোসাইন, পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, মহীয়সী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব ছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনুপ্রেরণা। তিনি ছিলেন জাতির পিতার আস্থা ও ভরসার সবচেয়ে বড় আশ্রয়স্থল। তিনি সব সময় এ দেশের স্বাধীনতাকামী মানুষের পক্ষে ছিলেন। তাই তিনি কখনো কোনো আন্দোলন সংগ্রামে জাতির পিতাকে পরিবারের মায়ার আঁচলে বেঁধে রাখতে চাইতেন না।

সোমবার (৮ আগস্ট) বেলা ১২টায় পিরোজপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের শহীদ আব্দুর রাজ্জাক সাইফ মিজান স্মৃতি সভা কক্ষে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, সব সময় তিনি জাতির পিতাকে মুক্তিকামী মানুষের পক্ষে কথা বলতে অনুরোধ করতেন। যার ধারাবাহিকতায় জাতির পিতা বারবার কারা বরণ করলেও তিনি কখনো ভেঙে পড়েননি। তিনি তার সন্তানদের উপযুক্ত শিক্ষায় শিক্ষিত করেছিলেন। বাঙালি জাতি কখনো দেশ স্বাধীনে মহীয়সী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের অবদান ভুলতে পারবে না।

জেলা প্রশাসক মো. জাহেদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার মো. সাঈদুর রহমান (পিপিএম সেবা), জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম এ আউয়াল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরা পারভীন, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেবেকা খান, সিভিল সার্জন ডা. মো. হাসনাত ইউসুফ জাকী, পিরোজপুর সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজের অধ্যক্ষ সৈয়দ আলী আজমসহ আরও অনেকে।

আলোচনা সভা শেষে জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জেলায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ৩০ জন নারীকে ২ হাজার টাকা করে ৬০ হাজার টাকা প্রদান, দুস্থ ও অসহায় তহবিল থেকে ১৮ জনকে ১ লাখ ১৫ হাজার টাকার চেক বিতরণ ও ৫০টি সেলাই মেশিন বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক মো. জাহেদুর রহমানসহ বিভিন্ন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাবৃন্দ। এর আগে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন জেলা প্রশাসক মো. জাহেদুর রহমানসহ জেলা প্রশাসনের অন্যান্যরা।