Amar Praner Bangladesh

বনদস্যু শাহাদাৎ হোসেন ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ায় জনগণের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে আতঙ্ক

 

 

সুমি চৌধুরী :

 

গাজীপুরে কালিয়াকৈর উপজেলার বোয়ালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও বর্তমান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেনের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার জমি বেদখল করে তাকে উচ্ছেদের অপচেষ্টা সহ এলাকা বন বিভাগের সরকারী গাছ বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

সরকারী জমিতে বাজার বসিয়ে ভাড়া আদায়ের নামে বিপুল অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে সরকারী বরাদ্দের টাকা এলাকার উন্নয়নে সঠিক ভাবে ব্যয় না করে নিজের ব্যক্তির স্বার্থে হাসিল করে কোটিপতি বনে গেছেন। চেয়ারম্যান সরকার দলীয় হওয়ার কারণে এলাকায় সাধারণ মানুষ তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খোলার সাহস পাননা।

এ বিষয়ে দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশের প্রতিবেদক এলাকার সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলে বিভিন্ন মানুষের উপর তার অত্যাচার জুলুম-নির্যাতন নিরিহ মানুষকে হয়রানির বেশ কিছু তথ্য উপাত্ত হাতে আসে। এলাকায় একটি মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের জমি আত্মসাৎ করার অপচেষ্টায় বিগত ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০ ইং রোজ শুক্রবার চেয়ারম্যানের দস্যু বাহিনী দিয়ে মুক্তিযোদ্ধার ইদ্রিস আলী বাড়ী থেকে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার গাছ কেটে নিয়ে যায়।

এ সময় তাদেরকে ন্যায় সঙ্গত বাঁধা দিলে হামলার শিকার হোন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বেশ কয়েকজন সদস্য। এই ঘটনা চেয়ারম্যান শাহাদাৎকে ১ নং বিবাদী করে গাজীপুর মহানগর বিজ্ঞ জুডিশ্যিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি সিআর মামলা রুজু হয়। একই এলাকার আরেকটি নিরিহ পরিবার মোঃ ফজলুল হক জানান, তার নিজ ভোগ দখলীয় জমি শর্তবান থাকাবস্থায় চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী ভূমিদস্যু লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে ১৩ই ডিসেম্বর ২০১৯ ইং তারিখে জোরপূর্বক কৃষি জমিতে হাল চাষ করে বেদখলের চেষ্টা করে।

এ সময় ন্যায় সঙ্গত বাঁধা প্রদান করলে আমাকে ও আমার পরিবারের লোকজনকে খুন জখম করার হুমকি প্রদান সহ যেকোন মূল্য সম্পত্তি হতে দখল উচ্ছেদ করে আমাদেরকে এলাকা ছাড়া করে দেওয়ার হুমকি দেয়। এ ঘটনার স্থানীয় সংসদ সদস্য আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি মন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয় বরাবর লিখিত অভিযোগ দেন ফজলুল হক। চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেনের বিরুদ্ধে বনের জমি দখল করে বাগান বাড়ী নির্মাণ শিরোনামে দৈনিক কালের কন্ঠ পত্রিকায় ১লা সেপ্টেম্বর ২০১৩ ইং সংবাদ প্রকাশিত হয়। চোরাই বাজারের মহাজন শিরোনামে তার বিরুদ্ধে সমকাল পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়।

একজন জনপ্রতিনিধি হয়ে নানা অপকর্মের সাথে যুক্ত থেকে তার মতো লোকের দ্বারা মানুষের কল্যাণ কি করে সম্ভব? ফিরিস্তি এখানেই শেষ নয়, নিজ অনুসারীরা এলাকায় যত ধরনের অন্যায় করে তাদের মদদ দিয়ে থাকে। বিরোধী পক্ষ হলে বিভিন্ন মিথ্যা হয়রানিমূলক মামলার জালে ফাঁসানো সহ নিজ কর্মীদের দিয়ে সাধারণ মানুষের জন্য নির্মম নির্যাতন চালাতেও দ্বিধাবোধ করেনা।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ জনগণের সরকার, রাষ্ট্রে জনগণের উন্নয়নে দেশের মানুষের ভাগ্য বদলে দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছেন দেশের সফল রাষ্ট্র নায়ক দেশরত্ম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দলের নাম ভাঙ্গিয়ে সারাদেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কিছু স্বার্থ লোভী সুযোগ কাজে লাগিয়ে নামে বেনামে গড়ে তুলেছেন সম্পদের পাহাড়।

এ ধরনের স্বার্থলোভী মানুষ দিয়ে নৌকার পক্ষে জনগণের কল্যাণে কাজ করা আওয়ামীলীগের দূর্নাম ছাড়া সুনাম অর্জন সম্ভব নয়। পর্ব-১। চলমান। ধারাবাহিক প্রতিবেদন চেয়ারম্যান শাহাদাৎ এর অবৈধ সম্পদের ফিরিস্তি নিয়ে পড়তে চোখ রাখুন দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ পত্রিকায়- আগামী পর্বে।