Amar Praner Bangladesh

বরগুনার ফুলঝুরি- রামনা খেয়াঘাটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও যাত্রীদের হয়রানি

 

 

মোঃ শাকিল আহমেদ, বরগুনা :

 

বরগুনা জেলার বরগুনা সদর উপজেলার সাথে বামনা উপজেলার একটি সংযোগ, ফুলঝুরি টু রামনা খেয়াঘাট, যেখানে রয়েছে নানা অনিয়ম।

যাত্রীদের কাছ থেকে নেয়া হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া, শিশুদের কাছ থেকে ও নেওয়া হয় ভাড়া টাকা এমনকি প্রতিবন্ধীদের কেও ছাড় দেওয়া হচ্ছে না।

নেই কোন মানবতা যাত্রীদের সাথে করা হয় অশুভ আচারন, এমনকি মহিলা যাত্রীদের সাথেও। ছোট খাট যেকোনো ধরনের ব্যাগ থাকলেও তার জন্য ভাড়া দিতে হয়। ভাড়া দিতে না চাইলে তাদেরকে হতে হয় না না হয়রানি শিকার দাবি ভুক্তভোগী জনসাধারণের।

এখানে যাত্রীরা এসে ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকে খেয়া ছাড়ার নাই কোন টাইম। যার ফলে ভোগান্তিতে এলাকার সাধারন মানুষ। কেউ কেউ বলে সকালে তাদের খেয়া পাড় হয়ে বরগুনা গিয়ে অফিস করতে হয় আবার কারও কোর্টে হাজিরা দিতে হয়। খেয়া ছাড়ার কোন টাইম না থাকায় কারও অফিস টাইম লস কারও কোর্টে হাজিরা দিতে দেরি হয় বলে যানান ভুক্তভোগীরা। আবার কখনও কখনও অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েও পাড় হতে হয় এমনও অভিযোগ আসে, দীর্ঘদিন যাবৎ এধরণের অনিয়ম চলে আসছে বলে যানা গেছে। ইজারাদারদের এহনও আচারনে নানা ধরনের হয়রানি ও ভোগান্তির শিকার হচ্ছে নিরীহ জনসাধারণ। নেই স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের নজরে।

এছাড়াও ঘাট থেকে যাত্রীদের তীরে উঠার নাই কোন ভালো সিড়ি। যার ফলে বয়স্ক ও প্রতিবন্ধীদ, অসুস্থ লোকদের খেয়ায় উঠতে হতে হয় দূর্ঘটনার শিকার যা প্রতি নিয়ত ঘটে থাকে।

তাই খেয়াঘাটের এই না না অনিয়ম ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, যাত্রীদের হয়রানির প্রতিরোধে, গত বৃহস্পতিবার ২৫ আগস্ট স্থানীয় লোকজন একটি মানববন্ধন করে থাকেন। মানববন্ধনে এলাকার লোকজন, ভুক্তভোগী যাত্রীরা, মোটর সাইকেল শ্রমিক, অটো, ভ্যান, রিক্সা, টেম্পু শ্রমিক সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিগন উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধনে তাদের দাবি যাত্রীদের সাথে এধরনে অসৌজন্য মূলক আচারন, এবং অতিরিক্ত ভাড়া যাতে না নেয়া হয়। আর যেন কোন যাত্রী হয়রানির শিকার না হয়।এবং তারা আরও দাবি করেন জেলা পরিষদ থেকে যেন একটি ভালো সিড়ির ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়।

সবশেষে তারা স্থানীয় জন প্রতিনিধের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মানববন্ধন শেষ করেন।