বরাদ্দ দেয়া সত্বেও শেরপুরে পুরাতন ব্যানারেই জাতীয় শোক দিবস পালন

শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধি:

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালনে পুরাতন ব্যানারই ব্যবহার করেছে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার খামারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। শুধু ব্যবহারই নয় এর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

খামারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে এ বছর শিক্ষার্থীদের ছাড়াই সামাজিক দূরত্ব মেনে আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছিল। এতে বিদ্যালয়ের সভাপতি আব্দুর রহমানসহ শিক্ষকেরা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে নতুন ব্যানারের পরিবর্তে গত বছরের ব্যানারটিই ঘষামাজা করে বিদ্যালয়ের দেয়ালে টানানো হয়েছিল।

এ ব্যাপারে খামারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আফসার আলী জানান, নতুন ব্যানার বানাতে দিয়েছিলাম। কিন্তু সময় মত পাইনি তাই লাগানো হয়নি। আরও অনেক বিদ্যালয়ই এমন করেছে বলে তিনি দাবী করেন।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোছা. মিনা খাতুন জানান, প্রতিটি বিদ্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস পালনে ব্যানার তৈরী ও বই কেনার জন্য দুই হাজার টাকা করে বরাদ্দ দিয়েছে সরকার। প্রতিটি বিদ্যালয়ে নির্দিষ্ট লোগো সম্বলিত ব্যানার তৈরীর নিদের্শনা দেয়া হয়েছে। যদি কেউ তা ব্যবহার না করে পুরাতন ব্যানার ব্যবহার করে বিষয়টি দেখা হবে।

শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. লিয়াকত আলী সেখ জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।