Amar Praner Bangladesh

বরিশালে একদিনে পানিতে ডুবে দুই শিশুসহ ৪ জনের মৃত্যু

 

গাজী আরিফুর রহমান, বরিশাল :

 

বরিশালে একদিনে পৃথকস্থানে পানিতে ডুবে দুই শিশু ও দুই মৃগী রোগীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার দুপুরের পর থেকে পৃথক স্থান থেকে এ চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

মৃতরা হলো-বরিশাল নগরীর ১০ নন্বর ওয়ার্ড রাজ্জাক স্মৃতি কলোনীর (কেডিসি) বাসিন্দা রিক্সাচালক মো. আমির হোসেন (৫০), বাকেরগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম ফরিদপুর গ্রামের হাওলাদার বাড়ির বাসিন্দা মনির হাওলাদারের ছেলে রুহান (৫), সোহান হাওলাদারের ছেলে সাইমুন (৪) ও পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার দ্বিপাশা গ্রামের অসীম চন্দ্রের ছেলে অপূর্ব চন্দ্র (১২)‌

বরিশাল ফায়ার সার্ভিসের লিডার জহির রায়হান জানান, সোমবার বেলা ১১ টার দিকে বরিশাল নগরের কীর্তনখোলা নদীতে কেডিসি ঘাট সংলগ্ন এলাকায় গোসল করতে যায় রিক্সাচালক আমির হোসেন। এরপর থেকে তার সন্ধান না পেয়ে স্বজনরা ঘাটে এসে তার জামা-কাপর পরে থাকতে দেখে। আমির হোসেন মৃগী রোগী হওয়ায় নদীতে নেমে নিখোঁজ হয়েছে এমন ধারণা করে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয় স্বজনরা।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল কয়েকঘণ্টা অভিযান চালিয়ে সন্ধ্যা ৬ টার দিকে তার মরদেহ উদ্ধার করেছে।

কোন অভিযোগ না থাকায় মরদেহ ময়না তদন্ত ছাড়াই স্বজনদের বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান, বরিশাল সদর নৌ-থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসনাত জামান।

অপরদিকে বরিশাল ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী হুমায়ন কবির জানান, পটুয়াখালী থেকে বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার উত্তর রামপুর গ্রামের নানা বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলো অপূর্ব। দুপুর আড়াইটার দিকে মৃগী রোগী অপূর্ব পায়রা নদীর শাখা নদীতে গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। স্বজনরা ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে তারা গিয়ে নদীতে তল্লাশী করে বিকেল চারটার দিকে অপূর্বর মরদেহ উদ্ধার করেন।

এছাড়া বাকেরগঞ্জ উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এসএম শফিকুর রহমান ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. শহীদুল ইসলাম জানান, পশ্চিম ফরিদপুর গ্রামের হাওলাদার বাড়ির দুই ভাই মনির ও সোহানের দুই ছেলে পরিবারের সবার অগোচরে পুকুরে পড়ে ডুবে যায়। পরে তাদের দেখতে না পেয়ে দুপুরে স্থানীয়রা পুকুরে তল্লাশি করে দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে।

বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলাউদ্দিন মিলন জানান, সাংবাদিকদের মাধ্যমে বিষয়টি জেনেছি। কিন্তু কোন পরিবার বিষয়টি জানায়নি।