Amar Praner Bangladesh

বুস্টার ডোজ নিতে সাধারণ মানুষের মধ্যে আগ্রহ কম

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

কোভিড-১৯ এর আক্রান্তের তীব্রতা কম হওয়ায় বুস্টার ডোজ নিতে সাধারণ মানুষের মধ্যে আগ্রহ কম বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম খুরশীদ আলম।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ‘কোভিড টিকা কেন্দ্র’ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান তিনি।

মহাপরিচালক বলেন, ‘প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ যে নির্দিষ্ট জনগোষ্ঠীকে দেওয়া হয়েছে তাদের সবাইকে বুস্টার ডোজ দেওয়ায় খানিকটা পিছিয়ে আছি। আমাদের হিসাবে ১৭ শতাংশ মানুষকে এখন পর্যন্ত বুস্টার ডোজ দেওয়া হয়েছে। আজ আমাদের লক্ষ্য দেশের একটি বড় জনসংখ্যাকে এই তৃতীয় ডোজ দেওয়া। যদি আমরা দিতে পারি তাহলে আমরা মনে করছি করোনার সংক্রমণের হারটাও অনেকটা কমে যাবে।’

স্কুলপড়ুয়া শিশুদের ভ্যাকসিন দেওয়ার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘৫ থেকে ১১ বছর বয়সী বাচ্চাদের ভ্যাকসিন এই মাসের শেষের নাগাদ আমাদের হাতে এসে পৌঁছাবে। এরপর আমরা তাদের ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করব। ইতিমধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে মিটিং হয়েছে। সারাদেশে একযোগে বাচ্চাদের টিকা দেওয়া শুরু হবে। প্রথমে ঢাকা থেকে শুরু হবে, পর্যায়ক্রমে সারা দেশেই চলবে।’

আজ ৭৫ লাখ ভ্যাকসিন কার্যক্রমের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মহাপরিচালক বলেন, ‘দিনের শেষে আসলে এ বিষয়ে বলা যাবে। তবে আমরা আশাবাদী।’

তিনি বলেন, ‘বুস্টার ডোজে মানুষের আগ্রহ অনেক কম। তারা ঠিক আগের মতো আগ্রহ নিয়ে এই টিকা দিতে আসছে না। প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পর আক্রান্তের হার কম এবং তীব্রতা কম, যে কারণে মানুষের মধ্যে ভয়টা নেই। সেই কারণে তাদের আগ্রহটাও কম। আমরা চেষ্টা করছি প্রচার-প্রসারের মাধ্যমে তাদের আগ্রহটা বাড়ানোর। আজ টিকাদানের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ না হলে কাল, পরশু এবং তার পরদিন টিকাদান চলবে।’