ভালুকায় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের করনিকের বিরুদ্বে দুর্নীতির অভিযোগ

 

ওমর ফারুক তালুকদার, ভালুকা ময়মনসিংহ প্রতিনিধি :

 

ভালুকায় নন এমপিও শিক্ষক ও কর্মচারীদের মাঝে সরকার ঘোষিত বিশেষ অনুদানের চেক বিতরণ নিয়ে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের করণিক মোকছেদুল আলমের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগে জানা যায়, করণিক মোকছেদুল আলম বিশেষ অনুদান ঘোষণার পূর্বে প্রথম দফায় জেলা শিক্ষা অফিস ময়মনসিংহ ও জেলা প্রশাসক ময়মনসিংহ বরাবর শিক্ষকদের সঠিক নামের তালিকা পাঠালেও বিশেষ অনুদান ঘোষণার পর আবার নতুন তালিকা চাওয়া হলে করোনাকালের সুযোগ নিয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে ফাকি দিয়ে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে পাড়াগাঁও চটান পাড়া স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসার প্রধান শিক্ষক মোছাঃ লিপি আক্তারের নামের স্থলে সাইফুল ইসলামকে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক জান্নাতুল ফেরদৌসি অনন্যা নামের স্থলে অন্য আরেকজনকে সহকারী শিক্ষক দেখিয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর তালিকা প্রেরণ করেন।

গত ১২/০৮/২০২০ ইং তারিখে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক চূড়ান্ত তালিকায় সাক্ষর করার জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিসে এলে তালিকায় উভয়ের নামের স্থলে যথাক্রমে সাইফুল ইসলাম ও কামরুজ্জামানের নাম দেখতে পান।

কারণ জানতে চাইলে, করণিক মোকছেদুল আলম বলেন, আমরা জানি না। ডিসি অফিসে যান। উপায় না দেখে প্রধান শিক্ষক মোছাঃ লিপি আক্তার ও সহকারী শিক্ষক জান্নাতুল ফেরদৌসি অনন্যা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর অত্র প্রতিষ্ঠানের অনুদানের চেক বিতরণ স্থগিত চেয়ে আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে, যথেষ্ট প্রমাণ থাকায় গত ১৩/০৮/২০২০ ইং তারিখে উক্ত প্রতিষ্ঠানের অনুদানের চেক বিতরণ স্থগিত রাখা হয়। একই দিনে করণিক মোকছেদুল আলমের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে বিচার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করেন।

আরো জানা যায়, করণিক আলম গত ১২ বছর যাবত ভালুকা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে কর্মরত আছেন। সরকারী বিধি মোতাবেক যেখানে ৩ বছর পরপর বদলির কথা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন সুপার ও প্রধান শিক্ষক বলেন করণিক মোকছেদুল আলম স্থানীয় কতিপয় দুষ্ট লোকের মদদ পুষ্ট, যোগসাজশ ও ছাত্রছায়ায় বিভিন্ন সময় শিক্ষকদের হয়রানি করেন। ২০১৫ সালে সরকারী বই বিক্রির সময় ধরা পড়েন কিন্তু অদৃশ্য শক্তির জোরে ছাড়া পান।

অভিযুক্ত করণিক মোকছেদুল আলমকে বারবার মোবাইলে ফোন দিলেও তিনি ফোন ধরেনি।

মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বজলুর রহমান মোবাইল ফোনে বলেন, করণিক মোকছেদুল আলমের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাড়াগাঁও চটান পাড়া স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষকদের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ বন্ধ রেখেছি।