Amar Praner Bangladesh

মনোহরদীতে নৌকার প্রার্থীর প্রচারণায় হামলা-ভাংচুর

 

 

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

নরসিংদীর মনোহরদীতে ইউপি নির্বাচনে নৌকা সমর্থকদের ওপর হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এতে ১৫-২০ জন আহত হয়েছেন, ভাঙচুর করা হয়েছে একটি মাইক্রো গাড়ি, পাঁচটি সিএনজি চালিত অটোরিকশা, তিনটি ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা এবং ১০ টি মোটরসাইকেল।

রবিবার রাতে মনোহরদী উপজেলার কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের বীরগাঁও চৌরাস্তা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অর্ধ শতাধিক লোকের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন কৃষ্ণপুর ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান এমদাদুল হক আকন্দ।

এ বিষয়ে নৌকা প্রতীকের মনোনীত প্রার্থী ও এমদাদুল হক আকন্দ বলেন, রবিবার বিকেলে আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে নৌকা প্রতীকের মনোনীত প্রার্থীর চিঠি পেয়ে এলাকায় ফিরছিলাম। এ খবর পেয়ে কর্মী সমর্থকরা মোটরসাইকেল, সিএনজি এবং অটোরিকশা নিয়ে মনোহরদী বাসষ্ট্যান্ড থেকে আমাকে নিতে আসে। যাওয়ার পথে বীরগাঁও চৌরাস্তা মোড়ে পৌঁছলে কৃষ্ণপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহবুবুর রহমান দুলালের নেতৃত্বে অন্তত ৭০-৮০ জনের একটি দলদেশীয় অস্ত্র ও ইট পাটকেল নিয়ে আমার সমর্থকদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় একটি মাইক্রো গাড়ি, পাঁচটি সিএনজি চালিত অটোরিকশা, তিনটি ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা এবং ১০ টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়। হামলায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৫-২০জন। আহতরা মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন।

অভিযুক্ত মাহবুবুর রহমান দুলাল জানান, এমদাদুল হক আকন্দ নৌকা প্রতীক পাওয়ার পর মিছিল নিয়ে চৌরাস্তা বাজারে এসে আমার কর্মীদের উপর হামলা করেছে। কয়েকজন সমর্থক গুরুতর আহত হয়েছে। কয়েকজনের বাড়ী-ঘরও ভাংচুর করেছে তার লোকজন। এই ঘটনায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দিয়েছি।

মনোহরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফরিদ উদ্দিন জানান, দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা শুনেছি। তবে এ বিষয়ে এখানো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।