Amar Praner Bangladesh

মাজারের তোবারক খেয়ে হাসপাতালে ভর্তি অনুসারীরা

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মাজারের তোবারক খেয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে ২৩ অনুসারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন। রবিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার আগানগর, ছাগাইয়া ও নবীপুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটলে বিকালে তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

অসুস্থ রোগীদের আত্মীয়রা জানান, গত শনিবার রাতে ভৈরবের বিভিন্ন গ্রাম থেকে প্রায় শতাধিক নারী, পুরুষ ও শিশুসহ ঢাকার বিমান বন্দর সংলগ্ন বাউনিয়া মহিউদ্দিন চিশতীর মাজারে যান। এরপর সেই রাতে মাজারে তারা গান-বাজনা শুনে ভোররাতে কয়েকজন তোবারক খান। এ সময় তাদের মধ্য থেকে ৩০/৪০ জন মাজারের তোবারকের প্যাকেট নিয়ে ভৈরবে চলে আসেন। তারা ভৈরবে বাসায় এসে দুপুরের পর অনেকেই মাজারের প্যাকেটের খাবার খান।

খাবার খাওয়ার পর বিকাল থেকে তাদের কারো কারো বমি, পাতলা পায়খানা হতে থাকে। এই অবস্থায় অসুস্থরা বিকাল ৬টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য চলে আসেন। এরপর অসুস্থদের মধ্যে শিশুসহ কয়েকজনের অবস্থা ভাল নয় বলে জানায় হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুল হামিদ বলেন, তারা শনিবার মাজারে গিয়ে সারারাত কাটিয়ে ভোররাতে মাজারের খাবার ভৈরবে এনে খেয়েছে। দুপুরে তারা অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদেরকে দ্রুত হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করি।

এদের মধ্যে অসুস্থ হয়ে যারা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে তারা হলেন- আকলিমা (২৫), নুরুন্নাহার (৪১), স্বর্ণা বেগম (২০), কামাল উদ্দিন (৪৫), নওশিন (৩৯), ফাহিম (৬), রোহান (৩), অনিতা বেগম (৪০), আ. রউফ (২), রুপালী বেগম (১৯), সেলিনা বেগম (৩৫), নদী (১৮) রূপক (২), আবদুল্লাহ (১৭ মাস), নাদিয়া বেগম (৪৫), মাফি (২২ মাস), জিনাত বেগম (৪৫), মিতা বেগম (২২), কুলসুম (২৮), খাদিজা বেগম (৪০), তানভির (১৫ মাস), মিম (৩), মুজাহিদ (৩)।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক রওশন আরা নিপা জানান, অসুস্থরা সবাই ফুড পয়েজিনিংয়ে (খাদ্য বিষক্রিয়া) আক্রান্ত হয়েছেন। বিকাল ৬টা থেকে রাত সাড়ে ৭টা পর্যন্ত ২৩ জন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়েছেন। এখনো রোগী আসছে। তাদের মধ্য শিশুসহ ৫/৭ জনের অবস্থা ভাল নয়। তারাও বমি করছে।