Amar Praner Bangladesh

মানব সেবায় নিয়োজিত একজন সাদা মনের মানুষ জাকারিয়া হোসেন মহারাজ

 

 

এস এম ফোরকান মাহমুদ :

 

বামনা উপজেলায় যে কয়জন দানশিল সমাজ সেবক ব্যাক্তি আছেন তাদের মধ্যে অন্যতম বামনা সদর ইউনিয়নের বিশিষ্ট শিল্পপতি জনাব, জাকারিয়া হোসেন মহারাজ।

যিনি শুধু সমাজ সেবা করেই, আছেন জনপ্রিয়তার শীর্ষে। সাদা মনের মানুষ হিসেবে পরিচিত জাকারিয়া হোসেন মহারাজ। এমন একটি নাম যিনি বামনা উপজেলার প্রতিটা ইউনিয়নের সকল প্রকার সমস্যা মোকাবেলায় এগিয়ে আসেন মানুষের সেবায়।

জাকারিয়া হোসেন মহারাজ সব সময় অসহায় দরিদ্র মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। করোনা, বন্য, খরা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ সহ সকল সমস্যায় যাকে পাশে পাওয়া যায় তিনি হলেন জাকারিয়া হোসেন মহারাজ।

তিনি কিছুদিন পরপর অসহায় দরিদ্র মানুষের ধারে ধারে ঘুরে তাদের খোজ কবর নেন পাশে দারান। করোনাকালীন সময় মানুষ যখন দিশেহারা হয়ে পড়ছিলো তখনও মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তিনি তার সাধ্যমত সেবা করে গেছেন।

কিছুদিন পর পর বামনা – উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নের প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ঘুরে মানুষের খোঁজ খবর নেন এবং দরিদ্র ও অসহয়দের মাঝে চাল, ডাল, তৈল, খাদ্য সামগ্রী সহ নগদ অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করে আসছেন।

এছারাও এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠীর কন্যা সন্তানের বিয়ের জন্য তার দানশিলতার হাত অনেক বড় এবং গরীব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনার জন্য নগত অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করে আসছেন মহারাজ।

বামনা উপজেলায় সন্ত্রাসবাদ দমন,মাদক, ও বাল্য বিয়ে রোধেও রেখেছেন গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা। জাকারিয়া হোসেন মহারাজ এলাকার সকল শ্রেণীর মানুষের কাছে একজন জনপ্রিয় মুখ। তার নম্রতা, তার অমায়িক আচরন যুব সমাজের কাছে এখন আইডল। মহারাজ এখন শুধু বামনা – উপজেলায় নয় সারা বরগুনা জেলায় অত্যন্ত জনপ্রিয় মানুষ।

জাকির হোসেন মহারাজের মত সমাজ সেবক বেচে থাকুক যুগের পর যুগ এমনতো প্রত্যাশা এলাকাবাসীর।
তার মত জনদরদী, সমাজ সেবক, সাদা মনের মানুষ সব সময় জন্মায় না। আগামীতে তাকে আমরা বরগুনা জেলা পরিষদ সদস্য
হিসেবে দেখতে চাই। আমরা তার সু-সাস্থ ও দির্ঘায়ু কামনা করি।

জাকির হোসেন মহারাজ বলেন, মানব সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি। মানুষের জন্য কিছু করতে পারলে মনে সান্তি পাই। তাই সারা জীবন বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে থাকতে চাই। আপনারাও আমার জন্য দোয়া করবেন ইনশাআল্লাহ।