বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১০:৫৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
চুরির ঘটনায় হয় না তদন্ত, ধরা পড়েনা চোর টাঙ্গাইলে অন্যের ভূমিতে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর নির্মাণের অভিযোগ! নড়াইল লোহাগড়া উপজেলা দুই সন্তানের জননীকে গলা কেটে হত্যা উত্তরার সুন্দরী মক্ষিরাণী তন্নি অনলাইনে চালাচ্ছে দেহ ব্যবসা মিরপুর এক নাম্বারের ফুটপাত থেকে কবিরের লাখ লাখ টাকা চাঁদাবাজি নাম ঠিকানা লিখতে পারেনা সাংবাদিকে দেশ সয়লাব গ্যাস ও বিদ্যুতের অতিরিক্ত দাম নিয়ে সংসারের হিসাব সমন্বয় করতে গলদঘর্ম দেশবাসী ভারত থেকে চুয়াডাঙ্গার বিভিন্ন পথে প্রবেশ করছে মাদক ৮০টি পরিবারের চলাচলের পথ বন্ধ করার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানববন্ধন অর্থ ও ভূমি আত্মসাৎ এ সিদ্ধহস্থ চুয়াডাঙ্গার প্রতারক বাচ্চু মিয়া নির্লজ্জ ও বেপরোয়া

মিরপুরে বাড়ি কিনে বিপাকে বাড়ির মালিক

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২৮ আগস্ট, ২০১৭
  • ৩৮ Time View

২৭ লক্ষ টাকা চাঁদা নেওয়ার পরেও দফায় দফায় চাঁদা দাবি, হাতিয়ার হিসেবে মেয়েকে দিয়ে মিথ্যা মামলা, মিথ্যা    তথ্য দিয়ে প্রশাসন, সংবাদকর্মীসহ রাজনৈতিক ব্যক্তিদের করছে বিভ্রান্ত, জাল দলিলে মালিক হওয়ার চেষ্টা
ষ্টাফ রিপোর্টার ঃ-

রাজধানী মিরপুরের মনিপুর এলাকায় বাড়ি কিনে বিপাকে পড়েছেন নব্য বাড়ির মালিক রোকেয়া বেগম। বাড়ির কেয়ারটেকার আবুল হোসেনের একের পর এক চক্রান্তের শিকার হয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন নব্য বাড়ির মালিক রোকেয়া বেগম ও তার পরিবার পরিজন। গত ৩/৪ মাস আগে নিজের পরিবার পরিজনের মাথা গোজার ঠাই করতে মনিপুর এলাকায় ৭৯১ নং বাড়ির কেয়ারটেকার এর কথায় বাড়িটি ভাই বোন সম্মিলিত ভাবে নিজেদের মায়ের নামে ক্রয় করে। বাড়িটি ক্রয় করার পরেই কেয়ারটেকার আবুল হোসেন ও তার পরিবার একের পর এক বিভিন্ন প্রকার ফন্দি-ফিকির করে টাকা হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করতে থাকে। সিএনজি চোরের মুল হোতা কেয়ারটেকার আবুল হোসেন ও তার পরিবার বিভিন্ন সন্ত্রাসীদের দিয়ে জিম্মি করে বাড়ির মালিকের কাছ থেকে চেকের মাধ্যমে ২৭ লক্ষ টাকা নিয়ে কেয়ারটেকার হোসেন বাড়িটি খালি করার কথা বলে। কিন্তু বিপত্তি দেখা দেয় ২৭ লক্ষ টাকা হাতে পাবার পরে। শুরু হয় নতুন আরো ২৩ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি। বাড়ির মালিকের পক্ষ থেকে আঃ করিম মৃধা এ বিষয়ে মিরপুর মডেল থানায় একটি চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করে। কেয়ারটেকার হোসেন ও তার সন্তান হাবিব সটকে পড়েন মনিপুর এলাকা থেকে। এবার নতুন সমস্যা দেখা দেয় কেয়ারটেকার আবুল হোসেনের স্ত্রী মঞ্জু বেগমকে নিয়ে। মঞ্জু বেগম দাবি করেন এই বাড়ির মালিক আমি। মঞ্জু বেগম নিজ মেয়েকে দিয়ে ওসমান মৃধাসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নামে করেন ধর্ষনের চেষ্টা সহ বিভিন্ন প্রকার মিথ্যা মামলা। কিছু অসাধু রাজনৈতিক ব্যক্তি ও সংবাদকর্মীদেরকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করছে। মিরপুর মডেল থানার সাহসী ও সৎ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও কিছু সাব ইন্সপেক্টরদের জড়িয়ে সবার বিরুদ্ধে করেন সংবাদ সম্মেলন। আইনের লোকজন ও সংবাদকর্মীসহ সবাইকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে নিজের সার্থসিদ্ধি করার জন্য দুর্বার গতিতে কুমতলবে চক্রান্ত করে যাচ্ছে এই মঞ্জু বেগম। গত ২৫/০৮/২০১৭ইং তারিখে মিরপুর মডেল থানার চৌকস পুলিশ সদস্যরা কেয়ারটেকার আবুল হোসেনের প্রতারক ও চাঁদাবাজ সন্তান হাবিবকে গ্রেফতার করলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন কেয়ারটেকায় আবুল হোসেন ও তার স্ত্রী মঞ্জু বেগম। এ বিষয়ে নব্য বাড়ির মালিক রোকেয়া বেগমের পরিবার পরিজন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

এই সাইটের কোন লেখা কপি পেস্ট করা আইনত দন্ডনীয়