Amar Praner Bangladesh

মেয়েকে বাঁচাতে পারলেন না এনরিকে

স্পোর্টস ডেস্ক :

 

লুইস এনরিকে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে ছেড়েছিলেন স্পেনের কোচিংয়ের দায়িত্ব। তবে কি সেই ব্যক্তিগত কারণ তা জানা যায়নি সে সময়, কারণটি জানা গেল বৃহস্পতিবার। মাত্র নয় বছর বয়সী মেয়ে ভুগছিলেন হাড়ের ক্যানসারে। গতকাল (বৃহস্পতিবার) পাড়ি জমিয়েছে না ফেরার দেশে এনরিকের মেয়ে জানা। আর এই দুর্বিষহ সময়ে এনরিকের পাশে দাঁড়িয়েছে ফুটবল বিশ্ব।

গতকাল এক টুইটবার্তায় মেয়ের মৃত্যুর কথা জানিয়ে এনরিকে লেখেন, ‘আমাদের পরিবারের জন্য তুমি একটি তারা হয়ে থাকবে। আমরা তোমাকে অনেক মিস করব। আমাদের জীবনের প্রতিটি দিন তোমাকে মনে রাখব এই আশা নিয়ে যে, ভবিষ্যতে আমাদের আবারও দেখা হবে।’ এ ছাড়া জানাকে সুস্থ করার জন্য নিয়োজিত চিকিৎসকদেরও ধন্যবাদ জানান তিনি।

এছাড়া শেষ পাঁচ মাস যারা এনরিকের পাশে ছিলেন তাদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। মেয়ে জানা যে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল সেই হাসপাতালের সহযোগীদেরও ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

স্পেন জাতীয় দলের সাবেক এই তারকার দু:সময়ে দু:খ জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে প্রক্তন ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনা।

লিওনেল মেসি এনরিকের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে লিখেছেন, ‘আমরা আপনার পাশে আছি এনরিকে। এই কঠিন সময়ে আমরা আপনার পাশে থাকবো।’ এছাড়া রিয়াল মাদ্রিদ শুক্রবার (৩০ আগস্ট) ট্রেনিং সেশন শুরু করার আগে এনরিকের মেয়ের জন্য এক মিনিত নীরবতা পালন করেছে।

এছাড়াও ফুটবল বিশ্বের বিভিন্ন খেলোয়াড়, ক্লাব ও ফুটবল প্রেমিকরা এনরিকের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে তার পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি জানান।

এনরিকে ও এলেনা কুলেল দম্পতির তিন সন্তানের মধ্যে জানা ছিল সবচেয়ে ছোট।

বার্সেলোনার ইতিহাসের দ্বিতীয় ট্রেবল ২০১৪-১৫ মৌসুমে জেতান এই কোচ। উয়েফা ইউরোর ২০২০ বাছাইপর্বে গত ২৭ মার্চ মাল্টার মুখোমুখি হয়েছিল স্পেন। সেই ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনও করেছিলেন এনরিকে। তবে সব পাল্টে যায় মেয়ে জানার হাড়ের ক্যানসারের কথা শোনার পর। সে ম্যাচের আগেই পাড়ি জমান মেয়ের কাছে। আর এরপর থেক দীর্ঘ পাঁচ মাস কাটিয়েছেন মেয়ের পাশেই। তারপরেও বাঁচাতে পারেননি মেয়েকে।

বার্সেলোনা ও স্পেন ছাড়াও স্প্যানিশ লিগের আরেক ক্লাব সেল্টা ভিগো ও ইতালির ক্লাব রোমার কোচ ছিলেন লুইস এনরিকে। কোচ হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে দলগুলোকে এনে দিয়েছেন অনেক সাফল্য।