Amar Praner Bangladesh

ময়মনসিংহের ভাবখালীকে জুয়া, মাদক, বাল্য বিবাহমুক্ত করতে শ্রম দিচ্ছেন ইউপি চেয়ারম্যান

মোঃ আরিফ রব্বানীঃ
ইউনিয়নকে মাদক, জুয়া, সন্ত্রাস, চাদাঁবাজ, বাল্যবিবাহ মুক্ত রাখতে কঠোর অবস্থানে থেকে প্রতিটি ওয়ার্ড ও প্রত্যেকটি গ্রামাঞ্চলের উন্নয়নের মাধ্যমে ইউনিয়নবাসীর নাগরিক চাহিদা পুরণে ব্যাপক নিরলস ভাবে শ্রম দিয়ে যাচ্ছে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ১২নং ভাবখালী ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান রমজান আলী। ইউনিয়নের উন্নয়ন কর্মকান্ডে তিনি সকল অপশক্তিকে চ্যালেঞ্জের মুখে মোকাবেলা করে তার সর্বোচ্চ চেষ্টা প্রয়োগ করে উন্নয়ন কার্যক্রমকে তরান্বিত করেছেন। তার মেধা সততা ও আদর্শকে কাজে লাগিয়ে সকল ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তকে কঠিন হস্তে দমনের মাধ্যমে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার চিন্তা ধারা ডিজিটাল বাংলার অন্তর্গত ভাবখালী ইউনিয়ন গড়ার লক্ষে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি। ইতিমধ্যে সরকারের টিআর,কাবিখা,কাবিটাসহ সকল উন্নয়ন ধারাকে বাস্তবায়নে দুর্নীতিমুক্ত পরিবেশে ইউনিয়নের সিংহভাগ উন্নয়ন সম্পন্ন করেছেন যা বিগত ২০ বছরে সম্ভব হয়নি। যেসব এলাকা দিয়ে বাইসাইকেল নিয়ে চলাচলে মানুষের জন্য কঠিন অবস্থায় ছিল সেসব এলাকার রাস্তাঘাট দিয়ে ইউনিয়নবাসী বর্তমানে থ্রী-হুইলার যানবাহন সহ যেকোনো ধরনের গাড়ী নিয়ে চলাফেরা করতে পারছে অনায়েশে। যার দৃষ্টান্ত চূড়খাই থেকে ভাবখালী পুরাতন বাজার রাস্তা, সুতিয়াখালী বাজার হইতে ইউনিয়ন সংযোগ রাস্তা, দড়িভাবাখালী তরফদার বাড়ী হইতে সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবের বাড়ী সংলগ্ন রাস্তা, ভাবখালী কচুয়ার পাড় হইতে কম্ভুর বাড়ী রাস্তা, ভাবখালীর উসমান আলী মেম্বারের বাড়ী (বড়বাড়ী) হইতে জব্বার নায়েবের বাড়ি রাস্তা, কেরামত বেপারী বাড়ি হইতে সাবেক মেম্বার রুহুল আমিনের বাড়ীর রাস্তাসহ আরো অসংখ্য রাস্তা, সর্বশেষ ভাবখালী সিডষ্টোর জড়াজীর্ণ ইউনিয়ন পরিষদ কর্যালয়কে কমপ্লেক্স ভবনে উন্নীত যা নির্মানাধীন। ইউনিয়ন পরিষদ ভবন নির্মাণ করতে গিয়ে তিনি দূষ্কৃতি কারীদের চক্রান্তে মিথ্যামামলার শিকার হয়ে বর্তমান সময় পর্যন্ত তিনি মামলার আসামী হয়েও ইউনিয়নের উন্নয়নে থেমে নেই। চেয়ারম্যান রমজান আলীর পরিশ্রমের ফসল হিসেবে ইউনিয়নের পূর্বের তুলনায় বাল্যবিবাহ কমে যাওয়াসহ জুয়ার জন্য বিখ্যাত ভাবখালীকে জুয়া, চুরি-ডাকাতিসহ নানাবিধ অপরাধ নির্মুল করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সফল এই চেয়ারম্যান জীবনের শেষ সময়টুকু পর্যন্ত ইউনিয়নবাসীর কল্যানে কাজ করে যেতে চান নিজের জীবন বাজি রেখে। সেলক্ষ্যে তিনি ইউনিয়নবাসীর দোয়া ও সহযোগীতা কামনা করেন।