Amar Praner Bangladesh

রক্ত দিয়ে প্রসূতি মাকে বাঁচালেন সাংবাদিক শাহাজাদা এমরান

 

 

মোঃ আবদুল আউয়াল সরকার, কুমিল্লা :

 

একজন ব্যক্তির প্রয়োজনে রক্ত দেয়া একটি মহৎ কাজ। সচেতনতার অভাবে এবং কিছু ভুল ধারণার কারণে আমরা অনেকেই রক্তদানের মতো মহৎ কাজ এবং দুর্লভ সুযোগ থেকে নিজেদের বঞ্চিত করছি প্রতিনিয়ত। অথচ সুস্থ্য প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ হিসেবে আমরা প্রতি ১২০ দিন পর কোন রকম শারীরিক ক্ষতি ছাড়াই রক্ত দিয়ে একজন মানুষের জীবন বাঁচাতে ভূমিকা রাখতে পারি। নিয়মিত ব্যবধানে ভেঙ্গে যাওয়া রক্তকণিকা আমাদের শরীরে কোন কাজে আসে না অথচ এই রক্ত অন্যকে দিলে তার জন্য তা হতে পারে অমূল্য।

মানুষ মানুষের জন্য। একজন রোগীর জীবন বাঁচাতে নিজের রক্ত দান করে কথাগুলোর বাস্তব দৃষ্টান্ত দেখালেন বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক শাহাজাদা এমরান।

একজন সাংবাদিক হয়ে শত ব্যস্থতার মধ্যেও রক্তশূন্য এক নারীকে রক্ত দিয়ে এ মহান কাজের খবরে সর্বত্র প্রশংসার ঝড় বইছে।

শনিবার (২৮ মে ২০২২ খ্রিঃ) কুমিল্লা মহানগরীর ঝাউতলায় “কুমিল্লা নাভানা হসপিটাল (প্রাঃ) লিঃ” নামে একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি মুরাদনগর উপজেলার আলগি গ্রামের মোঃ আবদুন নূরের স্ত্রীর জীবন বাঁচাতে ওই রক্তদান করেন।

দীর্ঘদিন ধরে ওই নারী রক্তশূন্যতায় ভুগছেন। তার রক্তের গ্রুপ ‘বি পজিটিভ’ হওয়ায় তার জন্য রক্তদাতা পাওয়া অনেকটা কঠিন হয়ে পড়ে। ওই রক্তশূন্য রোগীর সংবাদটি একজনের কাছ থেকে তিনি শুনতে পেরে ওই প্রসূতি মাকে রক্ত দিতে আগ্রহী হন।

ওই দিনই শাহাজাদা এমরান দ্রুত হসপিটালে গিয়ে নিজের শরীর থেকে এক ব্যাগ রক্ত দেন ওই নারীকে। একজন সাংবাদিকের এমন মহান কাজে রক্তদানে মানুষ এগিয়ে আসবেন বলে অনেকেই মনে করেন।