Amar Praner Bangladesh

রাজধানী উত্তরার গৌরব আওয়ামী লীগের অন্যতম কর্নধার বর্ষিয়ান নেতা আলহাজ্ব মোঃ হাবিব হাসান

শের-ই-গুলঃ সবার সাথে হাস্যজ্জল ভাবে কথা বলা, সবার সুখ দুঃখের কথা শুনা, অসহায় গরীব মানুষের পাশে দাড়ানো, এই বিংশ শতাব্দির অন্যতম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বর্ষিয়ান ত্যাগি নেতা আলহাজ্ব মোঃ হাবিব হাসানের চরিত্রের অণ্যতম বৈশিষ্ট। তিনি বলেন, “মানুষ সারাজীবন বেচে থাকে না, তাহলে আমরা কেন হিংষা, বিদ্বেষ ছড়াবো? আল্লাহ আমাদের কে এই দুনিয়া দিয়েছেন তার আনুগত্ব করার জন্য, তারই ইচ্ছায় হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙ্গালী জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার একটি ভাষনে উপহার হিসেবে পেয়েছি এই বাংলাদেশ, জীবনের শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত এই দেশের সেবা করাই আমার স্বপ্ন আমার শেষ ইচ্ছা। বঙ্গবন্ধুর সু-যোগ্য কণ্যা প্রধান মন্ত্রী বাংলাদেশের উন্নয়নের যে ধারাবাহিকতা চালিয়ে যাচ্ছে তার এই মিশনকে লক্ষে পৌছাতে একজন কর্মী হিসেবে আমরণ চেষ্টা করে যাবো”। এমনটাই মত প্রকাশ করলেন দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশকে আলহাজ্ব মোঃ হাবিব হাসান।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলীয় মনোনয়ন ও প্রার্থী বাছাই করার ক্ষেত্রে প্রার্থী আগ্রহের বিষয়ে কথা হয় ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলহ¦াজ মোঃ হাবিব হাসানের সাথে।
ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলহ¦াজ মোঃ হাবিব হাসানের সাথে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশের প্রতিবেদকের সাথে কথা হলে তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, আওয়ামীলীগ সভানেত্রী জাতীর জনকের কন্যা দেশরতœ শেখ হাসিনা যদি আমাকে যোগ্য মনে করেন, তাহলে তিনি আমাকে মনোনয়ন দেবেন। আমি নৌকার পক্ষের মানুষ, সেক্ষেত্রে নৌকার মাঝি যেই হোক না কেন তার পক্ষে কাজ করে যাবো এবং তাকে বিজয়ী করবো।
অপর এক প্রশ্নের জবাবে জনপ্রিয় নেতা আলহ্াজ মোঃ হাবিব হাসান বলেন, আমি তিনবার ঢাকা- ০৫ ও ১৮ এই এলাকা থেকে নির্বাচন করতে চেয়েছি। প্রতিবারই আমাকে দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে, ভবিষ্যতে বিষয়টি বিবেচনা করে দেখা যাবে। একথা বলে আমাকে প্রতিবারই আশ্বস্থ করা হয়েছে।
দীর্ঘকাল থেকে আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে আমি জড়িত। দলের সাথে যুক্ত থেকে অনেক অত্যাচার-নির্যাতন সহ্য করেছি। দলের কর্মসূচি পালনে অগ্রভাগে রাজপথে থেকেছি। আমাকে ঘিরে ঢাকা-১৮ নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষের ইতি মধ্যে আশা-প্রত্যাশা সৃষ্টি হয়েছে। দল আমাকে আগামী একাদ্বশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী বাছাই ও মনোনেয়ন করার ক্ষেত্রে সঠিক ভাবে মূল্যায়ন করবে। এমনটা আমি আশাবাদী।
ঢাকা উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মোঃ হাবিব হাসান দলীয় মনোনেয়ন পাওয়ার ক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই। তার এলাকার দলিয় লোকজন এবার তাকে সংসদ সদস্য হিসেবে দেখতে চান।
ঢাকা -১৮ নির্বাচনী আসনের রাজনৈতিক অঙ্গনে অতি পরিচিত নাম আলহাজ মোঃ হাবিব হাসান। গত ২ যুগেরও বেশি সময় ধরে তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সোনার বাংলা গড়তে জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বিএনপি-জামাত (জোট) সরকারের শাসনামলে তিনি ছিলেন উত্তরার রাজপথের সামনের সারির একজন সৈনিক। এছাড়া ঢাকা মহানগরী বৃহত্তর উত্তরা থানা আওয়ামীলীগের প্রায় দেড় যুগ ধরে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বও কর্তব্য নিষ্ঠার সাথে পালন করেন আলহাজ মোঃ হাবিব হাসান।
দক্ষিণ এশিয়ার বাংলাদেশের সাবেক প্রথম মহিলা ও সফল স্বরাষ্টমন্ত্রী এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এডভোকেট সাহারা খাতুন এম.পির সাথে কাজ করে যাচ্ছেন এই বলিষ্ঠ জনপ্রিয় নেতা ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মোঃ হাবিব হাসান।
দলমত নির্বিশেষে প্রবীণ, ত্যাগী-নিবেদিত প্রাণ ও বর্ষিয়ান রাজনৈতিক নেতা আলহাজ হাবিব হাসান কে এবার এমপি হিসেবে দেখতে চায় ঢাকা-১৮ নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষ। রাজধানীর উত্তরায় বসবাসরত মানুষেরা মনে করে আলহাজ্ব হাবিব হাসান আমাদের গৌরব, তাকে পেয়ে আমরা একজন যোগ্য অভিভাবক পেয়েছি।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঢাকা-১৮ আসনে আওয়ামী লীগ ও সাধারণ মানুষের মধ্যে তার আকাশচুম্বি যে জনপ্রিয়তা রয়েছে তাতে বর্ষিয়ান রাজনৈতিক নেতা আলহাজ্ব হাবিব হাসান কে ঢাকা-১৮ নিবাচর্নী আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিলে তার বিজয়ী হওয়া প্রায় অনেকটাই সুনিশ্চিত। আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মী, সমর্থক ও সাধারণ মানুষের প্রাণের দাবী উঠেছে আলহাজ মোঃ হাবিব হাসানকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৮ আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিতে দলের ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কণ্যা দেশরতœ শেখ হাসিনার প্রতি জোরদাবী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনার আবেদন রইল।