Amar Praner Bangladesh

রুশ ও ইউক্রেনীয় সেনারা নারীদের ধর্ষণ করছে : জাতিসংঘ

 

 

 

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

 

বেশ কিছুদিন ধরে ইউক্রেনের বিভ্ন্নি শহরে রাশিয়ার সামরিক অভিযান চলছে। সংঘাতের মধ্যে উভয় দেশের সেনা সদস্যরা দেশটির নারীদের ধর্ষণ করছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক দফতর (ইউএনএইচআরসি) এর বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

সম্প্রতি ইউক্রেনভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা লা স্ত্রাদা-ইউক্রেন জাতিসংঘ বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ পাঠিয়েছে।

সংস্থাটির প্রেসিডেন্ট কাতেরিনা চেরেপাখা অভিযোগে উল্লেখ করেন, ইউক্রেনে অন্তত ১২ জন নারী ও কিশোরী-তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়েছে।

ধর্ষণের শিকার নারীদের বিস্তারিত উল্লেখ করে কাতেরিনা আরও বলেন, এটা হচ্ছে পানিতে ভেসে থাকা হিমশৈলের ওপরের অংশ। বাস্তবে রুশ সেনাদের ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এমন নারীদের সংখ্যা কয়েকগুণ বেশি। আগ্রাসনকারী বাহিনীর সদস্যরা ধর্ষণকে তাদের অভিযানের অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে।

তবে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছে, ইউক্রেনে যুদ্ধের সুযোগে রুশ ও ইউক্রেনীয়-উভয় বাহিনীর অনেক সদস্য ধর্ষণের ও যৌন সহিংসতার মতো অপরাধে জড়িয়ে পড়ছেন।

সংস্থাটির প্রতিনিধিরা গত এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ইউক্রেনের বিভিন্ন অঞ্চল পরিদর্শন করেছেন। এসময় তারা উভয় দেশের সেনাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও নাবালিকা ধর্ষণের প্রমাণ পেয়েছেন। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে ইতোমধ্যে বিষয়টি তোলা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

এ বিষয়ে জাতিসংঘের ইউক্রেন প্রতিনিধির সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল রয়টার্স, কিন্তু তিনি কোনো কথা বলতে রাজি হননি। তবে রাশিয়ার প্রতিনিধি দিমিত্রি পোলিয়ানস্কি এই অভিযোগ দৃঢ়ভাবে অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘আমরা আগেও বলেছি, রুশ সেনারা কেবল সামরিক স্থাপনাগুলোতেই হামলা করছে। বেসামরিক লোকজনদের তার আঘাত করছে না।’

পোলিয়ানস্কি বলেন, বিশ্বের সামনে রুশ সেনাদের বিকৃত ও ধর্ষণকামী হিসেবে পরিচিত করানোর জন্য পরিকল্পিতভাবে এই অভিযোগ আনা হয়েছে।