লাইফ সাপোর্টে সুরকার আলাউদ্দিন আলী

 

বিনোদন ডেস্ক:

 

 

দেশের কিংবদন্তী গীতিকার ও সুরকার আলাউদ্দিন আলী লাইফ সাপোর্টে। ঢাকার আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতালে বর্তমানে তার দেখভালের জন্য সার্বক্ষণিক রয়েছেন তার স্ত্রী ফারজানা আলীসহ তার অন্যান্য সন্তানেরা।দীর্ঘদিন ধরেই নানা রোগে আক্রান্ত দেশের বরেণ্য গীতিকার ও সুরকার আলাউদ্দিন আলীর চিকিৎসা বাড়িতেই চলছিল

শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে গেলে আজ শনিবার ভোর পৌনে পাঁচটায় তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। অবস্থা খারাপ হলে কিছুক্ষণ পর তাঁকে লাইফ সাপোর্টে দেওয়া হয়।

গীতিকার ও সুরকার আলাউদ্দিন আলীর ছেলে শওকত আলী রানা গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘ভোরের দিকে বাবার শরীর খুব বেশি খারাপ হয়ে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে তাকে মহাখালীর আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতালে নিয়ে যাই। শ্বাসকষ্টের তীব্র সমস্যা থাকায় চিকিৎসকরা লাইফ সাপোর্টে নিয়ে যায়। বাবার জন্য সবার কাছে দোয়া চাইছি। পাশাপাশি কোনো গুজব না ছড়ানোর জন্য অনুরোধ করছি।’

গুণী এই মানুষের জন্ম ১৯৫২ সালের ২৪ ডিসেম্বর মুন্সিগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলার বাঁশবাড়ি গ্রামে। তাঁর বাবা ওস্তাদ জাদব আলী। মায়ের নাম জোহরা খাতুন।

দেড় বছর বয়সে পরিবারের সঙ্গে ঢাকার মতিঝিলের এজিবি কলোনিতে চলে আসেন আলাউদ্দিন আলী। তিন ভাই ও দুই বোনের সঙ্গে সেই কলোনিতেই বড় হন এই গুণী শিল্পী। সংগীতে প্রথম হাতেখড়ি ছোট চাচা সাদেক আলীর কাছে। পরে ১৯৬৮ সালে বাদ্যযন্ত্রশিল্পী হিসেবে চলচ্চিত্রজগতে পা রাখেন। শুরুটা শহীদ আলতাফ মাহমুদের সহযোগী হিসেবে, পরে প্রখ্যাত সুরকার আনোয়ার পারভেজের সঙ্গে কাজ করেন দীর্ঘদিন।

লোকজ ও ধ্রুপদি গানের সংমিশ্রণে গড়ে ওঠা আলাউদ্দিন আলীর সুরের নিজস্ব ধরন বাংলা সংগীতে এক আলাদা ঢং হয়ে উঠেছে প্রায় চার দশক ধরে। বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানের বহু স্বনামধন্য শিল্পী তাঁর সুরে গান করে নিজেদের সমৃদ্ধ করেছেন।

আলাউদ্দিন আলীর সুস্থতার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন তাঁর ছেলে শওকত আলী। বাবার অসুস্থতা ঘিরে যেন কোনো ধরনের গুজব ছড়ানো না হয়, সে অনুরোধও রেখেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরে আলাউদ্দিন আলী ফুসফুসের প্রদাহ ও রক্তে সংক্রমণসহ শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছেন। ক্যান্সারেও আক্রান্ত তিনি। ২০১৫ সালের ৩ জুলাই এক পরীক্ষায় তার ফুসফুসে টিউমার ধরা পড়ে। বাংলাদেশ ও ব্যাংককে তার চিকিৎসা হয়েছে। সাভারে সেন্টার ফর রিহ্যাবিলিটেশন অব প্যারালাইজড কেন্দ্রেও চিকিৎসা নিয়েছেন দীর্ঘদিন।

আলাউদ্দিন আলী বাংলাদেশের বরেণ্য সুরকার, সংগীত পরিচালক ও গীতিকার। এ পর্যন্ত ৮ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। এর মধ্যে ১৯৭৮ থেকে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত টানা তিনবার পুরস্কৃত হয়ে সংগীত পরিচালক হিসেবে রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি। যে রেকর্ড আজও কেউ ভাঙতে পারেনি।