Amar Praner Bangladesh

শেরপুরে নানা আয়োজনে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস পালিত

 

 

গিয়াস উদ্দিন রাসেল , শেরপুর প্রতিনিধি :

 

‘বিনা খরচে নিন আইনি সহায়তা, শেখ হাসিনার সরকার দিচ্ছে এই নিশ্চয়তা’ এ প্রতিপাদ্য বিষয়কে ধারণ করে শেরপুরে নানা আয়োজনে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস পালিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির আয়োজনে আদালত চত্বরে বেলুন উড়িয়ে দিবসের কার্যক্রমের সূচনা করেন জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান, জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ আল মামুন। পরে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

র‌্যালি শেষে জলা জজ আদালতের সভাকক্ষে আয়োজিত জাতীয় লিগ্যাল এইড দিবসের তাৎপর্য বিষয়ক আলোচনা সভায় জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ আল মামুনের সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো. মোমিনুর রশীদ, জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এসএম হুমায়ুন কবীর, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হান্নান মিয়া, পৌর মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন, সিভিল সার্জন ডা. অনুপম ভট্টাচার্য্য, জেলা জজ আদালতের পিপি এ্যাডভোকেট চন্দন কুমার পাল, জিপি এ্যাডভোকেট আবুল কাশেম ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট মোখলেছুর রহমান আকন্দ প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা লিগ্যাল এইড কর্মকর্তা (সিনিয়র সহকারী জজ) মো. গোলাম মাহবুব খান।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন যুগ্ম জেলা জজ-১ ইসমেত জাহান। ওইসময় আদালতের অন্যান্য বিচারক, প্যানেল আইনজীবীসহ বিভিন্ন দপ্তরের প্রতিনিধি ও বিচারপ্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ২৮ এপ্রিল ২০২১ থেকে গত এক বছরে জেলা লিগ্যাল এইড কার্যালয়ে মামলা ও বিকল্প পদ্ধতিতে নিস্পত্তির (এডিআর) জন্য মোট আবেদন পড়েছে ৭৬৫টি। এর মধ্যে মামলা নিস্পত্তি হয়েছে ১২২টি, এডিআর হয়েছে ৩০৫টি। নথিজাত আছে ১৯১টি, অপেক্ষমান ১৪৭টি। এছাড়া পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে ৫০৮ জনকে। বিকল্প বিরোধ নিস্পত্তির ফলে বিচারাধীন মামলার নিস্পত্তির সংখ্যা ১৪৩। এডিআরের মাধ্যমে ২ কোটি ৯৭ লক্ষ ১৮ হাজার ৭৫০ টাকা পক্ষগণকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে গত ২০২০ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত এক বছরে আবেদনের সংখ্যা ছিল ৩৪৫টি। এরমধ্যে মামলা নিস্পত্তি হয়েছে ৬৫টি, বিকল্প পদ্ধতিতে সফল নিস্পত্তি হয়েছে ২৮৩টি, নথিজাত ছিল ৮৩টি, অপেক্ষমান ছিল ১০৩টি, এডিআর এর মাধ্যমে ২ কোটি, ৫০ লাখ, ৪৭ হাজার ৬৫ টাকা আদায় করে পক্ষগণের মধ্যে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।