রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৩২ অপরাহ্ন
Title :
বমনা থানায় মাদক-সন্ত্রাস নির্মূলে কঠোর ভূমিকায় ওসি বশির আলম কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক হলেন নীলফামারীর মোঃ রতন সরকার রূপসায় আওয়ামীলীগ নেতা ও সাংবাদিক বাবুর চাচার মৃত‍্যু, জানাজা সম্পন্ন শেরপুরে ৬ বছরের শিশু ধর্ষণ, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার টাঙ্গাইলে ইট পোড়ানোয় ব্যবহৃত হচ্ছে বনের কাঠ : অবৈধ ১৪৮ ইটভাটার কার্যক্রম বন্ধ হয়নি মিরপুর ১ নাম্বারে প্রকাশ্যেই আবাসিক হোটেল আল মামুনের রমরমা মাদক ও নারী বাণিজ্য নরসিংদীতে ইউপি চেয়ারম্যানকে গুলি করে হত্যা স্কুল ছাত্রী মিমকে হত্যার অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে বিচারের দাবিতে শিববাড়ী মোড়ে মানববন্ধন বন্দরের ৭২তম প্রতিষ্ঠা বাষির্কীতে ইয়ামিন আলীকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান কুষ্টিয়ার থানাপাড়ায় বসতবাড়িতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড

শেরপুরে বিএনপি পুলিশ সংঘর্ষে এসআই আমিনুর রহমান বাদী হয়ে থানায় মামলা

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২২
  • ৬ Time View

 

 

মোঃ শামছুল হক, জেলা প্রতিনিধি শেরপুর :

শেরপুরে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষের ঘটনায় ৬৬ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ১৫০ জন নেতাকর্মীকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আমিনুর রহমান বাদী হয়ে মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) রাতে এ মামলাটি দায়ের করেছেন।

মামলার আসামিরা সবাই বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী। এদের মধ্যে ১৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্র‍েফতারকৃতরা হলেন, ১. তানভীর কবির খান রিয়াদ,২. মোঃ বিপুল মিয়া,৩. মোঃ মোক্তার আলী, ৪. সুমন মিয়া, ৫. মোঃ মোসলেম উদ্দিন, ৬. মোঃ খোকন মিয়া, ৭. মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, ৮. মোঃ মন্টু মিয়া, ৯. মোঃ খালেকুজ্জামান আসিফ, ১০. মোঃ আলম মিয়া, ১১. মোঃ রফিকুল ইসলাম, ১২. মোঃ আব্দুল মালেক, ১৩. মোঃ খোরশেদ আলম, ১৪. মোঃ সোলাইমান ১৫. মোঃ দুলাল হোসেন।

শেরপুর সদর থানার ওসি বছির আহমেদ বাদল মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওসি বছির আহমেদ বাদল জানান, মঙ্গলবার বিকেলের ঘটনায় পুলিশ অ্যাসল্টের অভিযোগে একটি মামলা হয়েছে। ওই মামলায় ৬৬ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতানামা আরও দেড় থেকে দুইশ জনকে আসামি করা হয়েছে। ঘটনার ভিডিওচিত্র দেখে এ মামলায় ইতোমধ্যে ১৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যান্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। গ্রেপ্তারকৃতদের ২৩ নবেম্বর বুধবার বিকেলে আদালতে সোপর্দ করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১০১ রাউন্ড শর্টগানের গুলি এবং ২২ রাউন্ড টিয়ারশেল ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

উল্লেখ্য, ২২ নবেম্বর মঙ্গলবার বিকেলে শহরের রঘুনাথ বাজার এলাকায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ছয় পুলিশসহ অন্তত ২১ জন আহত হয়েছেন।

 

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Headlines