Amar Praner Bangladesh

শ্রীবরদীতে ভোট না দেওয়াতে রাস্তা কেটে তিনশত মানুষকে অবরুদ্বের অভিযোগ

 

 

মোঃ শামছুল হক, জেলা প্রতিনিধি শেরপুরঃ

শেরপুরের শ্রীবরদীতে ভোট না দেওয়াতে রাস্তা কেটে তিনশ মানুষকে অবরুদ্ধের অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগিরা। প্রায় এক মাস যাবত বাড়ি থেকে বের হতে না পারায় মানবেতর জীবন করছেন তারা। একশ ফুট সড়ক কেটে ফেলায় তাদের এ ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে বলে বৃহস্পতিবার সরেজমিন গেলে জানান ভুক্তভোগিসহ স্থানীয়রা।

জানা যায়, উপজেলার সিংগাবরুনা ইউনিয়নের মাটিফাটা দক্ষিণপাড়া গ্রামের শতাধিক পরিবারের বসবাস। ওই গ্রামের ইমান আলী মৃত্যুর পূর্বে স্থানীয়দের দুর্দশা লাঘবে তার জমির ওপর দিয়ে পাঁচ ফুট প্রসস্তের একটি রাস্তার জন্য জমি মৌখিক ভাবে দান করেন। সেই থেকে তারা ওই রাস্তায় চলাচল করে আসছেন। গত ইউপি নির্বাচনে পরাজিত হন তার ছেলে সাবেক ইউপি সদস্য মোতালেব হোসেন সওদাগর। এরপরই ওই রাস্তার শেষ মাথায় পাকা সড়কের পাশে তার জমির ওপরের প্রায় একশ ফুট রাস্তা কেটে আবাদি জমি তৈরি করে। ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েন শিশুসহ প্রায় তিনশ মানুষ। বন্ধ হয় চলাচল। স্কুলে যেতে পারছেনা প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী। প্রসুতি নারী সহ কেউ অসুস্থ্য হলেও তাকে নিতে পারছেনা হাসপাতালে। বৃষ্টি হলে পড়েন আরো চরম বিপাকে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী রিয়াজুল ইসলাম ১শ ১৫ জনের স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি বরাবর দাখিল করেন। রিয়াজুল ইসলাম বলেন, ইমান আলী হাজীর মৃত্যুর পর তার ছেলে সকলের সামনে অঙ্গিকার করেছে তারা রাস্তা দিয়ে চলাচলে বাঁধা দিবেনা। ওই জমিটুকু তাদের কাছে বিক্রি করবে। কিন্তু সে গোপনে অন্যলোকের কাছে জমি বিক্রি করে আমাদের যাতায়াতের পথ বন্ধ করে দিয়েছে।

এ ব্যাপারে মোতালেব হোসেন সওদাগরের সাথে মোঠোফোনে যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি। সিংগাবরুনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকরুজ্জামান বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি। এই কাজটি অমানবিক। এতে প্রায় একশ পরিবার চলাচল করতে পারছেনা। তবে আমি উভয় পক্ষের সঙ্গে বসে আলোচনা করে সমাধানের চেষ্টা করবো।

শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, এ ব্যাপারে গ্রামবাসীদের লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। একটি পরিদর্শন দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ব্যাপারে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।