Amar Praner Bangladesh

সংখ্যালঘুর দোহাই দিয়ে উচ্চ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে জমি দখলের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ
সাতক্ষীরায় সংখ্যালঘুর দোহাই দিয়ে উচ্চ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়া গ্রামের মৃত লালু চরন বিশ্বসের ছেলে তপন কুমার বিশ্বাস ব্যক্তি এক মৎস্য ঘের ব্যবসায়ীর ক্রয়কৃত জমি দখলের ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন একই গ্রামের মৃত এনায়েত উল্লাহর ছেলে মৎস্য ঘের ব্যবসায়ী শেখ আবুল হোসেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ১৯৯৭ সালে ৭ মে দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়া গ্রামের মৃত লালু চরন বিশ্বসের ছেলে তপন কুমার বিশ্বাসের কাছ থেকে পারুলিয়া মৌজার ৩০২৭নং খতিয়ানের হাল ৮৪৮১ দাগে ৪ শতক জমি কোবলা দলিল (নং ৯৪৩) মূলে ক্রয় করেন। তপন বিশ্বাস উক্ত জমি মাফ জরিপ করে দখল বুঝে দেয়ার পরে আমি একই গ্রামের মৃত কোরবান আলীর ছেলে নুর আমিনের কাছে ভাড়া প্রদান করি। কিন্তু সুচতুর তপন বিশ্বাস সংখ্যালঘুর দোহাই দিয়ে উক্ত বিক্রয়কৃত জমি থেকে আমাকে উচ্ছেদ করে তা জোরপূর্বক দখলে নেয়ার জন্য কুটবুদ্ধির আশ্রয় নিয়ে সাতক্ষীরা সহকারি জজ আদালত এবং অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতসহ বিভিন্ন স্থানে মামলা ও মিথ্যে অভিযোগ দেয়। আদালত শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য দেবহাটা থানার ওসিকে নির্দেশ দিলে উভয় পক্ষকে নিয়ে একটি শালিশী বৈঠকে বসে মিমাংশা করে দেয়া হয়। কিন্তু কিছুদিন পর মামলাবাজ তপন বিশ্বাস আমিসহ শালিশে উপস্থিত ব্যক্তিদের নামে সাতক্ষীরা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করলে তদন্তে তা মিথ্যে প্রমানিত হয়। একপর্যায় জমি রক্ষার্থে আমি ২০১৫ সালে সাতক্ষীরা যুগ্ম জেলা জজ আদালতে একটি দেওয়ানি মামলা (নং ৯৩) দায়ের করি। চলতি বছরের ১৫ নভেম্বর আদালত মামলাটি আমার পক্ষে রায় দেয়। একই সাথে আদালত মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তপন বিশ্বাসকে উক্ত জমিতে যেতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। পরে তপন বিশ্বাস উচ্চ আদালতে আপিল করলে আদালত স্থিতিবস্থা বজায় রাখতে উভয় পক্ষকে আদেশ দেন। কিন্ত তপন উচ্চ আদালতের নির্দেশ না মেনে সংখ্যালঘুর দোহাই দিয়ে জোরপূর্বক ওই জমি দখল নিতে নানারকম ষড়যন্ত্র করছে। সাংবাদিকদের ভুল তথ্য দিয়ে পত্রিকায় মিথ্যে সংবাদ প্রকাশ করিয়েছে।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, বিষয়টি সর্ম্পকে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন অবগত থাকা স্বত্তেও তপন বিশ্বাস মিথ্যের আশ্রয় নিয়ে প্রশাসনকে বিতর্কিত করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। তিনি যাতে মামলাবাজ তপন বিশ্বাসের ষড়যন্ত্র থেকে রক্ষা পেয়ে শান্তিপূর্নভাবে ক্রয়কৃত সম্পত্তি ভোগদখল করতে পারেন তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।