Amar Praner Bangladesh

সাতক্ষীরার মাঠে লাল-সবুজে হলুদ হয়ে বাতাসে দুলছে ভুট্টা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ সাতক্ষীরা জেলায় ব্যাপকভাবে ভুট্টার চাষ হয়েছে। ফলনও বেশ ভাল। এরই মধ্যে সবুজ পাতার আড়ালে হাসছে হলুদ রঙের ভুট্টা। মাথায় লাল ফুল, গায়ে হলুদ বর্ণের এসব ভুট্টা দোল খাচ্ছে বাতাসে। উৎপাদন বেশি, খরচ কম তাই ভুট্টচাষে আগ্রহ বেড়েছে এখানকার কৃষকদের। আঁখ চাষের পরিবর্তে কৃষকরা ভুট্টা চাষের দিকে ঝুঁকে পড়েছেন। চলতি মৌসুমে এ জেলাতে এসকে ৪০, প্যাসিফিক, মুকুট, এলিট, সুপার ফাইন জাতের ভুট্টার আবাদ বেশি হয়েছে। সাতক্ষীরার ভুট্টার ভাল সুনাম ও রয়েছে। তাই এ জেলার উৎপাদিত ভুট্টা জেলার চাহিদা মিটিয়ে পাশ্ববর্তী জেলা সমূহে সরবরাহ করা হয়।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, চলতি মৌসুমে জেলায় ভুট্টার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২৩৫ হেক্টর জমিতে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২ হাজার ৫৬ মে. টন। সদরে আবাদ হয়েছে ৬৪ হেক্টর জমিতে যা থেকে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৫৬০ মে. টন। কলারোয়াতে আবাদ হয়েছে ৫০ হেক্টর জমিতে। যা থেকে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪৩৭ মে. টন। তালায় আবাদ হয়েছে ৪৬ হেক্টর জমিতে। যা থেকে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪০৩ মে. টন। দেবহাটায় আবাদ হয়েছে ১৭ হেক্টর। যা থেকে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১৪৯ মে. টন। কালিগঞ্জে আবাদ হয়েছে ৩৪ হেক্টর জমিতে। যা থেকে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২৯৮ মে. টন। আশাশুনিতে আবাদ হয়েছে ১০ হেক্টর জমিতে। যা থেকে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৮৭ মে. টন। শ্যামনগরে আবাদ হয়েছে ১৪ হেক্টর জমিতে। যা থেকে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১২২ মে. টন।
কৃষকরা বোরো ধানের পাশাপাশি গত কয়েক বছর ধরে ভুট্টা আবাদ করছেন। প্রাকৃতিক দুর্যোগ ভুট্টা আবাদের উপর তেমন প্রভাব পড়ে না এবং সার তেলসহ অন্যান্য খরচ কম হওয়ায় এবং চাহিদা থাকার কারণে ভুট্টা চাষে কৃষকরা দিনদিন আগ্রহী হয়ে উঠছেন।
এ জেলার ভুট্টার দানা এবং রং ভালো হওয়ায় বাজারেও চাহিদা অনেক। তাই স্থানীয় ব্যবসায়ীরা চাষীদের কাছ থেকে সরাসরি ভুট্টা ক্রয় করেন।
এবিষয়ে সাতক্ষীরা খামার বাড়ির কৃষি উপ-পরিচালক আব্দুল মান্নান জানান, শুধু উৎপাদন বাড়ালেই হবে না, মাটির উর্বরতা যেন ঠিক থাকে এবং চাষীরা যাতে পরিকল্পিতভাবে ভুট্টার আবাদ করতে পারে সেদিকেও নজর দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া ধান ও গমের তুলনায় ভুট্টার পুষ্টিমান বেশি। এতে প্রায় ১১ভাগ আমিষ জাতীয় উপাদান রয়েছে। আমিষে প্রয়োজনীয় অ্যামিনো এসিড, ট্রিপটোফ্যান ও লাইসিন অধিক পরিমাণে আছে। এছাড়া হলদে রংয়ের ভুট্টা দানায় প্রতি ১০০ গ্রামে প্রায় ৯০ মিলিগ্রাম ক্যারোটিন বা ভিটামিন ‘এ’ থাকে।