Amar Praner Bangladesh

সেই ছাত্রলীগ নেতা আরিফ গ্রেপ্তার

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ

শরীয়তপুরে ছয় নারীকে ফাঁদে ফেলে ধর্ষন ও সেসব দৃশ্য গোপনে ভিডিও করার অভিযোগ অভিযুক্ত শরীযতপুরের নারায়নপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক আরিফ হোসেন হাওলাদারেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শরীয়তপুরের গোসাইরহাট সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার খন্দার খায়রুল হাসান তাকে আটক করেছেন। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে চারটার দিকে গোসাইরহাট উপজেলার সইক্কা ব্রীজ এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।
এসএসপি খন্দকার খায়রুল হাসান বলেন,আরিফ চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ থেকে ট্রলার যোগে গোসাইরহাট আসতে ছিল। সে তার বাবা ও মামার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করছিল। ওই ফোনের কল ট্রাকিংক করে তার অবস্থান নিশ্চি করা হয়। পদ্মা ও মেঘ নদী পাড় হয়ে জয়ন্তিয়া নদীতে ট্রলার প্রবেশ করলে তাকে পুলিশ ঘেড়াও দিয়ে আটক করে। তাকে ভেদরগঞ্জ থানায় নেয়া হচ্ছে। পরবর্তিতে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারগারে পাঠানো হবে।
শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার নারায়নপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক ছিলেন আরিফ হোসেন হাওলাদার। সে ফেরাঙ্গিকান্দি গ্রামের মিন্টু হাওলাদারের ছেলে। স্থানীয় একটি কলেজের ¯œতক শ্রেনীর ছাত্র। ফাঁদে ফেলে ছয় নারীকে ধর্ষনের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। গত ১৫অক্টেবর ছয় নারীকে ধর্ষনের দৃশ্যর ভিডিও ও ছবি মানুষের হাতে ছড়িয়ে পরে। ১৭ অক্টোবর থেকে স্থানীয় বিভিন্ন মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছড়িয়ে দেন। অভিযোগ পেয়ে ১৯ অক্টোবর ভেদরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ আরিফকে বহিস্কার করে। বিভিন্ন গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় ১১ নভেম্বর জেলা ছাত্রলীগ আরিফকে স্থায়ী ভাবে বহিস্কার করে। গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে ভূক্তভোগি এক নারী তার বিরুদ্ধে ভেদরগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেছেন। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষনের অভিযোগ এনে মামলাটি করা হয়। বুধবার সকালে আরিফকে কোটে প্রেয়ন করেছে ভেদরগঞ্জ থানা পুলিশ ।