স্বাস্থ্যবিধি মেনে ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করা যাবে ; সুপ্রিম কোর্ট

 

নিজস্ব প্রতিবেদক:

 

স্বাস্থ্যবিধি মেনে, শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব কঠোরভাবে অনুসরণ করে ফৌজদারি মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তি চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করতে পারবে বলে নির্দেশনা জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

শনিবার (৪ জুলাই) রাতে প্রধান বিচারপতির নির্দেশক্রমে এ সংক্রান্ত একটি প্র্যাকটিস নির্দেশনা জারি করে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রধান বিচারপতি সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ বিচারপতিদের সাথে আলোচনাক্রমে এই মর্মে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন যে, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত স্বাস্থ্যবিধি এবং শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব কঠোরভাবে অনুসরণ করে ফৌজদারি মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তি/ব্যক্তিরা চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করতে পারবেন। এ বিষয়ে চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট, দায়িত্বপ্রাপ্ত সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেট এজলাস কক্ষে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনসহ শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিতকরণে প্রয়োজনীয় কার্যপদ্ধতি নির্ধারণ করবেন।

নির্দেশনায় আরো বলা হয়, আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে তার শুনানিতে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে বলা হয়েছে। আদালত প্রাঙ্গণ ও এজলাসকক্ষে ৬ ফুট শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। কাঠগড়ায় একসঙ্গে সর্বোচ্চ ৫ জন আসামি থাকতে পারবে। আদালত কক্ষে ৬ জনের বেশি অবস্থান করতে পারবে না। যদি এসব না মানা হয় তাহলে সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেট শুনানি স্থগিত করতে পারবেন।

সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ আবেদন দাখিল এবং শুনানি কার্যক্রমের পদ্ধতি ও সময়সূচি এমনভাবে নির্ধারণ ও সমম্বয় করতে হবে যাতে আদালত প্রাঙ্গণে এবং ভবনে জনসমাগম না ঘটে। একটি মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তির পক্ষে সর্বোচ্চ ২ জন আইনজীবী শুনানিতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। জনসমাগম এড়াতে প্রতিদিন নির্দিষ্ট সংখ্যক আত্মসমর্পণ দরখাস্ত শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন বলেও নির্দেশনায় বলা হয়।

একটি আত্মসমর্পণ দরখাস্ত শুনানি শেষে সংশ্লিষ্ট আইনজীবী এজলাস কক্ষ ত্যাগ করার পর বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট পরবর্তী আত্মসমর্পণ দরখাস্ত শুনানির জন্য গ্রহণ করবেন। এজলাস কক্ষে প্রত্যেককে আবশ্যিকভাবে মাস্ক পরা অবস্থায় থাকতে হবে। আদালতে প্রবেশের সময় প্রত্যেক ব্যক্তির তাপমাত্রা পরীক্ষার ব্যবস্থাও নিতে হবে। মামলা শুনানির সময়ে এজলাস কক্ষের বাইরে আদালতের আত্মসমর্পণ দরখাস্ত শুনানির সময় অভিযুক্ত ব্যক্তি এবং তার পক্ষে নিযুক্ত আইনজীবী ছাড়া অন্য কোনো আইনজীবী এজলাস কক্ষে অবস্থান করবেন না বলেও জানানো হয়।

আদালতে প্রবেশের সময় প্রত্যেক ব্যক্তির তাপমাত্রা পরীক্ষা করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা আবশ্যক। এজলাস কক্ষে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনসহ শারীরিক দূরত্ব কঠোরভাবে বজয় নিশ্চিতকরণে তাৎক্ষণিক যেকোনো পরিস্থিতি বিবেচনায় ম্যাজিস্ট্রেট প্রয়োজনবোধে আত্মসমর্পণ দরখান্ত শুনানি করা হতে বিরত খাকাসহ অন্যান্য আনুষাঙ্গিক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবেন।